অদূরেই নিজের বাড়ি, সেখানে ঢোকার উপায় নেই মিনতি নাথের

মিনতি নাথ। বয়স বাষট্টি। রয়েছেন প্রতিবেশীর আশ্রয়ে। কিছুটা দূরেই নিজের বাড়ি। সেখানে ঢোকার উপায় নেই। অজান্তেই হাতছাড়া হয়ে গেছে মাথার ওপরের ছাদটুকু। ১৯৬৯ থেকে রাধাগোবিন্দ পল্লির বাসিন্দা মিনতি নাথ। ২ বছর আগে মিনতি নাথের স্বামী অভিজিত্‍ নাথের মৃত্যু হয়।১ বছর আগে মিনতি দেবী জানতে পারেন বাড়ি বিক্রি হয়ে গেছে।অভিযোগ, গোপনেই বাড়ি বিক্রি করে দেয় ছেলে মনোজিত্‍ নাথ।নিমতি নাথকে উত্‍খাত করে বাড়ি দখল করে প্রোমোটার মানস মণ্ডল।

Updated: Mar 19, 2017, 08:55 PM IST
অদূরেই নিজের বাড়ি, সেখানে ঢোকার উপায় নেই মিনতি নাথের

ওয়েব ডেস্ক: মিনতি নাথ। বয়স বাষট্টি। রয়েছেন প্রতিবেশীর আশ্রয়ে। কিছুটা দূরেই নিজের বাড়ি। সেখানে ঢোকার উপায় নেই। অজান্তেই হাতছাড়া হয়ে গেছে মাথার ওপরের ছাদটুকু। ১৯৬৯ থেকে রাধাগোবিন্দ পল্লির বাসিন্দা মিনতি নাথ। ২ বছর আগে মিনতি নাথের স্বামী অভিজিত্‍ নাথের মৃত্যু হয়।১ বছর আগে মিনতি দেবী জানতে পারেন বাড়ি বিক্রি হয়ে গেছে।অভিযোগ, গোপনেই বাড়ি বিক্রি করে দেয় ছেলে মনোজিত্‍ নাথ।নিমতি নাথকে উত্‍খাত করে বাড়ি দখল করে প্রোমোটার মানস মণ্ডল।

আরও পড়ুন ইন্দ্রনীল সেনের প্রতিশ্রুতি অট্টহাসকে পর্যটন মানচিত্র তুলে ধরবে সরকার

ভিটেছাড়া মিনতি নাথ ছুটে যান স্থানীয় কাউন্সিলর প্রণবেশ মণ্ডলের কাছে। অভিযোগ, তিনিও পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে বেশ কিছু টাকা হাতিয়ে নেন। সোনারপুরের টাউন তৃণমূল সভাপতি রঞ্জিত রায়ের কাছেও যান বৃদ্ধা। সোনারপুর থানাও সহযোগিতা করেনি বলেই অভিযোগ। লিখিত অভিযোগ করেছেন বারুইপুরের SDPO অর্ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছেও। মুখ্যমন্ত্রীর দফতরেও যোগাযোগ করেছেন মিনতি নাথ। তাঁর শেষ ভরসা এখন নবান্নই।

আরও পড়ুন  বসিরহাটে ধুন্ধুমার, ক্ষিপ্ত জনতা পুলিসের গাড়ি ফেলে দিল নয়ানজুলিতে