ব্রিগেডের লাড্ডু শিলিগুড়িতে ছুঁড়ে ফেললেন মোদী

Last Updated: Thursday, April 10, 2014 - 14:47

ফেব্রুয়ারিতে ব্রিগেডে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, মমতা রাজ্যের কাজ করুন। আমি দেশের কাজ করি। তখন তো আপনাদের দু হাতেই লাড্ডু। দু মাস পরেই শিলিগুড়িতে দাঁড়িয়ে সেই লাড্ডু নিজেই ছুঁড়ে ফেললেন মোদী। মমতাকে সরাসরি আক্রমণ করলেন। রাজ্য সরকারের কাজের তুমুল সমালোচনা করলেন। রাজ্যে পরিবর্তন আসেনি বলেও কটাক্ষ করলেন। আসল খোঁচাটা দিলেন কিছু পরে। যখন বললেন, সারদাকাণ্ডে দোষীদের শাস্তি দেবেন।

সবাই যে বিষয়টার দিকে তাকিয়ে ছিলেন সেই পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্য নিয়ে অবশ্য বেশ সতর্ক ছিলেন মোদী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অস্বস্তি আরও বাড়িয়ে মোদী বলেছেন, গোর্খাদের দাবি বিবেচনা করে দেখার কথা। তবে গোর্খাল্যান্ড শব্দটি উচ্চারণ করেননি।

আজ শিলিগুড়িতে নরেন্দ্র মোদীর সভার পর বিজেপি নেতারা চনমনে। ব্রিগেডে মমতার সঙ্গে সন্ধির বার্তা দিয়ে রাজ্য নেতাদের মন খারাপ করে দিয়েছিলেন নমো। কিন্তু একের পর এক সভায় কখনও দাঙ্গার মুখ, দাঙ্গার সরকার বলে মোদীকে কটাক্ষ করেন মমতা। এরপর মোদীও সরাসরি তৃণমূল সুপ্রিমোকে একহাত নেন।

বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা নয়। পশ্চিমবঙ্গে ভোট শুরুর ঠিক আগে লড়াইয়ের বার্তাই দিয়ে গেলেন বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী। শুক্রবার উত্তরবঙ্গ সফরে যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থীকে কী জবাব দেন, তার দিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

যে আশা নিয়ে ব্রিগেডের সভায় তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে নরম অবস্থান নিয়েছিল বিজেপি নেতৃত্ব, সে আশা পূরণ হয়নি। ইদানিং প্রত্যেক জনসভায় বিজেপিকেই সবচেয়ে বেশি সময় দিচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সাম্প্রদায়িকতা ইস্যুতে সরাসরি আক্রমণ করছেন বিজেপি প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থীকে। সে কথা নরেন্দ্র মোদীও যে জানেন, তা বোঝা গেল মাটিগাড়ার পাস্কেলগুড়ির সভায়।

দিন যত যাচ্ছে ততই বাড়ছে দূরত্ব। তৃণমূলের সঙ্গে প্রিপেড বা পোস্টপেড, কোনওরকম জোটের সম্ভাবনা নেই বুঝেই সুর চড়ালেন মোদী।

নরেন্দ্র মোদী বললেন, মানুষকে ধোঁকা দিয়েছে সরকার। মোদী মুখ খুলেছেন সারদা কেলেঙ্কারি নিয়েও। তাঁর বক্তব্যে ছিল এসজিডিএ (SJDA) দুর্নীতির কথাও। বললেন, সারদার দোষীদের শাস্তি দেব।



First Published: Thursday, April 10, 2014 - 14:43


comments powered by Disqus