রক্তাক্ত নির্বাচন: জামুরিয়ায় খুন সিপিআইএম প্রার্থীর স্বামী

রক্তাক্ত নির্বাচন: জামুরিয়ায় খুন সিপিআইএম প্রার্থীর স্বামী, গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে

রক্তাক্ত নির্বাচন: জামুরিয়ায় খুন সিপিআইএম প্রার্থীর স্বামী, গোষ্ঠীদ্বন্দ্বেদ্বিতীয় দফার পঞ্চায়েত ভোটের শুরুতেই রক্ত ঝরল বর্ধমানে।আসানসোলের জামুরিয়ায় বোমাবাজিতে নিহত হলেন এক সিপিআইএম কর্মী। নিহত সিপিআইএম কর্মীর নাম শেখ হাসমত।  তিনি মধুডাঙা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রার্থী মানোয়ারা বিবির স্বামী। বহিরাগত এক হামলাকারীকে ধরে ফেলেন গ্রামবাসীরা। গণপিটুনির জেরে মৃত্যু হয় ওই হামলাকারীর। রাজকুমার কোরা নামে ওই ব্যক্তি জামুরিয়ার বোরিংডাঙ্গার বাসিন্দা। বহিরাগতদের নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস ওই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে সিপিআইএম। রাজকুমার কোরা তাদের দলের সদস্য বলে জানিয়েছেন তৃণমূল নেতা অভিজিত ঘটক।

তাঁর অভিযোগ, সিপিআইএম মধুডাঙা এলাকায় সন্ত্রাস চালাচ্ছে, এই খবর পেয়ে রাজকুমার কোরা সেখানে যান। বোমাবাজি ও হামলার ঘটনা ঘটে মঙ্গলকোটের চাকুলে। ওই কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে বুথ দখলের অভিযোগ উঠেছে। বাম প্রার্থীদের পোলিং এজেন্টদের মারধরের অভিযোগ উঠেছে কালনার সুলতানপুরেও। জেলা জুড়ে তৃণমূল কংগ্রেস সন্ত্রাস চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন সিপিআইএমের বর্ধমান জেলা সম্পাদক অমল হালদার। নির্বাচন কমিশনের কাছে এনিয়ে তাঁরা অভিযোগ করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। মঙ্গলকোটের দুটি বুথ, কাটোয়ার একটি বুথ কেতুগ্রাম দু নম্বর ব্লকে  একটি  বুথে ব্যালট ছিনতাই হয়েছে বলে জেলা প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে।
অন্যদিকে, তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে মঙ্গলকোটের নপাড়ায় নিহত হলেন এক তৃণমূল
কর্মী। নিহত তৃণমূল কর্মী শাহজাদা মল্লিক। নির্দল হয়ে দাঁড়ানো স্থানীয় এক
তৃণমূল নেতার অনুগামীদের সঙ্গে আজ সকালে সংঘর্ষ হয় তৃণমূল প্রার্থীর
সমর্থকদের। তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে বোমাবাজিতে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে
মঙ্গলকোটের ভাটপাড়াও। সংঘর্ষে গুলি চলে বলেও অভিযোগ। তৃণমূলের বিরুদ্ধে বুথের ভেতর ঢুকে ভোটারদের মারধরের অভিযোগ
উঠেছে বর্ধমানের বিরুটিকুড়ির বেলকাস গ্রামপঞ্চায়েতে। অভিযোগ, শাসকদলের
গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই ওই হামলা হয়েছে। হামলার অভিযোগ এলাকার তৃণমূল
পঞ্চায়েত প্রার্থী সুকুমার ঘোষের দলবলের বিরুদ্ধে। তাঁদের লক্ষ্য ছিলেন
নির্দল হয়ে দাঁড়ানো বিক্ষুব্ধ তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী গণেশ ঘোষের
সমর্থকেরা। বুথের ভিতর ঢুকে লাইনে দাঁড়ানো ভোটারদের তারা মারধর করতে শুরু
করে।



First Published: Monday, July 15, 2013, 19:47


comments powered by Disqus