নরওয়ে শিশুকাণ্ড: আদালতের দ্বারস্থ মা

Last Updated: Friday, December 21, 2012 - 09:13

দুই সন্তানকে কাছে পেতে আদালতের দ্বারস্থ হলেন সাগরিকা ভট্টাচার্য। কাকার কাছে অভিজ্ঞান-ঐশ্বর্যার ঠিকমতো দেখভাল হচ্ছে না। চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটি নির্দেশ দিলেও সন্তানদের কাছে পেতে পুলিস তাঁকে সাহায্য করছে না। এই অভিযোগে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন সাগরিকা ভট্টাচার্য। শীতের ছুটির পর মামলার শুনানি হবে। 
অনুরূপ ও সাগরিকা ভট্টাচার্য তাঁদের দুই সন্তান অভিজ্ঞান-ঐশ্বর্যাকে ঠিকমতো যত্ন করছেন না। এই অভিযোগে বার্নে ভার্নে নামে নরওয়ের একটি সংস্থা ভট্টাচার্য দম্পতির কাছ থেকে তাঁদের দুই সন্তানকে নিজেদের হেফাজতে নেয়। সন্তানদের ফেরত চেয়ে নরওয়ের আদালতে মামলা করেন অনুরূপ ও সাগরিকা। আদালত নির্দেশ দেয় অভিজ্ঞান ও ঐশ্বর্যাকে বাবা-মায়ের কাছে ফেরানো যাবে না। তবে, তাঁদের কোনও আত্মীয় চাইলে তাঁর হেফাজতে শিশুদুটিকে দেওয়া যেতে পারে। সেইমতো অনুরূপ ভট্টাচার্যের ভাই অরুণাভাস ভট্টাচার্যের হেফাজতে শিশুদুটিকে তুলে দেওয়া হয়। কাজের প্রয়োজনে অনুরূপ নরওয়েতে থেকে গেলেও দেশে ফিরে আসেন সাগরিকা। বর্তমানে তিনি কলকাতায় নিজের বাড়িতে রয়েছেন। আর তাঁর সন্তানেরা রয়েছে কুলটিতে তাদের কাকার বাড়িতে।
সাগরিকা ভট্টাচার্য অভিযোগ করেছিলেন, কাকার কাছে তাঁর সন্তানদের ঠিকমতো দেখভাল করা হচ্ছে না। এমনকি, ছেলে-মেয়েকে দেখতে গেলেও তাঁকে বাধা দেওয়া হচ্ছে। যদিও, সব অভিযোগই অস্বীকার করেন অভিজ্ঞান-ঐশ্বর্যার কাকা অরুণাভাস ভট্টাচার্য। এরপর, সন্তানদের কাছে পেতে বর্ধমানের চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটির দ্বারস্থ হন সাগরিকা। কমিটি দুই সন্তানকে তাদের মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। যদিও, এ বিষয়ে কুলটি থানা তাঁকে কোনও সাহায্য করেনি বলে অভিযোগ করেন সাগরিকা ভট্টাচার্য। পুলিসের যুক্তি ছিল, নরওয়ের আদালতের নির্দেশ রয়েছে অভিজ্ঞান-ঐশ্বর্যাকে বাবা-মায়ের কাছে দেওয়া যাবে না। তাই, সাগরিকা ভট্টাচার্যকে সাহায্য করতে তারা অপারগ।
এই  পরিস্থিতিতে সন্তানদের কাছে পেতে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন সাগরিকা ভট্টাচার্য। বৃহস্পতিবার মামলাটি উত্থাপিত হয়। তবে, এ দিন পুলিসের তরফে আদালতে কেউ উপস্থি না থাকায় একতরফা মামলাটি শুনতে চাননি বিচারপতি। শীতের ছুটির পর আদালত খুললে শুনানি শুরু হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।



First Published: Friday, December 21, 2012 - 09:13


comments powered by Disqus