এই মাসেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ঘোষণা, জানালেন সুব্রত

এগারোই মার্চ রাজ্যে ভোট অন অ্যাকাউন্ট বাজেট পেশের পরই পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ঘোষণা করবে রাজ্য সরকার। আজ একথা জানিয়ে দিয়েছেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। এমনকি কদফায় ভোট হবে সেবিষয়েও সিদ্ধান্ত বাজেটের পরই নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। কিন্তু,  কেন ভোটের দিন ঘোষণা পিছিয়ে দিতে চাইছে রাজ্য? বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজনৈতিক ফায়দা তুলতেই এই সিদ্ধান্ত।

Updated: Mar 2, 2013, 08:32 PM IST

এগারোই মার্চ রাজ্যে ভোট অন অ্যাকাউন্ট বাজেট পেশের পরই পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ঘোষণা করবে রাজ্য সরকার। আজ একথা জানিয়ে দিয়েছেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। এমনকি কদফায় ভোট হবে সেবিষয়েও সিদ্ধান্ত বাজেটের পরই নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। কিন্তু,  কেন ভোটের দিন ঘোষণা পিছিয়ে দিতে চাইছে রাজ্য? বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজনৈতিক ফায়দা তুলতেই এই সিদ্ধান্ত।
পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত রাজ্য নির্বাচন কমিশন। সেরে ফেলা হয়েছে প্রাথমিক পর্যায়ের কাজও। সেকথা জানিয়েও দেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারকে। কিন্তু এতদিন কোনও উত্তর মেলেনি রাজ্যের তরফে। তিন দফায় রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচন করাতে চেয়ে রাজ্য সরকারকে চিঠিও দেয় কমিশন। কিন্তু, তারপরও চুপ ছিল রাজ্য। অবশেষে শনিবার পঞ্চায়েত মন্ত্রী জানিয়ে দিলেন, বিধানসভায় ভোট অন অ্যাকাউন্ট পেশের পরই পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ঘোষণা করতে চায় রাজ্য সরকার।
কিছুদিন আগেও পঞ্চায়েত ভোট এগিয়ে আনার পক্ষে ছিল রাজ্য। পরে সেই সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে এসে নির্দিষ্ট সময়েই নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে, দিন ঘোষণায় গড়িমসি কেন?
বিশেষজ্ঞদের মতে, বাজেট পেশের আগে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ঘোষণা করে দিলে বাজেটে বিভিন্ন প্রকল্পের জন্য টাকা বরাদ্দ হলেও, তা খরচ করা যাবে না।
প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ টাকা খরচ করতে গেলে নির্বাচনী বিধিভঙ্গের আওতায় পড়বে রাজ্য সরকার। কিন্তু ভোট অন অ্যাকাউন্ট পেশের পর নির্বাচনের দিন ঘোষণা হলে, নির্বাচনী বিধির আওতায় পড়বে না রাজ্য সরকার প্রকল্পের ঘোষণা আগে হয়ে যাওয়ায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ইতিবাচক মনোভাব গড়ে উঠবে, পঞ্চায়েত নির্বাচনে তার প্রভাব পড়তে পারে।
রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, সবদিক বিবেচনা করেই অন্তবর্তী কালীন বাজেট পেশের পরই পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত রাজ্য নির্বাচন কমিশন।