পঞ্চায়েতের পঞ্চমীর আগেও সেই সন্ত্রাস, সেই হামলা

Last Updated: Wednesday, July 24, 2013 - 13:39

শেষ লগ্নে পঞ্চায়েত ভোট, কিন্তু থামছে না সন্ত্রাস। পঞ্চম দফার আগে উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে হামলা চলে সিপিআইএম কর্মীদের বাড়িতে। ধূপগুড়ির শালবাড়িতে তৃণমূল কর্মীদের হাতে আক্রান্ত সিপিআইএম প্রার্থী।
বীরভূমে ভোট পরবর্তী হিংসার বলি হলেন এক সিপিআইএম সমর্থক। বীরভূমের রামপুরহাট থানার সইপুর গ্রামে খুন হয়েছেন সিপিআইএম কর্মী হুমায়ুন মীর। গতকাল রাতে তাঁর বাড়িতে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। হুমায়ুন মীর ও তাঁর মাকে বেধড়ক মারধর করা হয়। হুমায়ুন মীরের মাথায় গুরুতর আঘাত লাগে। হুমায়ুন মীরকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে আজ সকালে মৃত্যু হয় তাঁর।
ভোট পরবর্তী হিংসায় পূর্ব মেদিনীপুরে এক সিপিআইএম কর্মীর বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটল কোলাঘাটের পারুলিয়া গ্রামে সিপিআইএম কর্মী অসিত কাণ্ডারের বাড়ির খড়ের গাদায় আগুন লাগিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা। ঘটনায় সিপিআইএমের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।
দুষ্কৃতীদের গুলিতে নদিয়ায় মৃত্যু হল এক মহিলার। কৃষ্ণনগরের নিকটবর্তী পঞ্চায়েত এলাকায় আজ মৃত্যু হয়েছে মঞ্জু সিং নামে বছর পঞ্চাশের এক মহিলার। দুষ্কৃতীদের গুলিতে তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি এলাকাবাসীর। ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে পুলিস। অন্যদিকে, মুরুটিয়াতে সিপিআইএম ও কংগ্রেসের সংঘর্ষে আহত হয়েছেন দুই কংগ্রেস কর্মী। সিপিআইএম পরিকল্পিতভাবে এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ কংগ্রেসের। সিপিআইএমের পাল্টা দাবি, তৃণমূলের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হয়েছেন দুই কংগ্রেস কর্মী।
উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ থেকে উদ্ধার হয়েছে এক যুবকের দেহ। বন্দর এলাকায় যুবকের নিজের বাড়ি থেকে তাঁর গুলিবিদ্ধ উদ্ধার করে পুলিস। নিহত যুবক গোপাল সাহা উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের বাসের কন্ডাক্টর। গোপাল সাহার মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। জামার পকেটে মিলেছে কার্তুজ। খুন না আত্মহত্যা, তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিস।  
ভোটের আগে সন্ত্রাসে উত্তপ্ত কোচবিহার। গতকাল রাতে তুফানগঞ্জের বালাভূতে সিপিআইএমের মহিলা প্রার্থী রাবিয়া বিবির বাড়িতে হামলা চলে। অভিযোগের হামলা চালায় তৃণমূলের বাইক বাহিনী। রাবিয়া বিবির বাড়ি ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। গুরুতর জখম হন প্রার্থীর স্বামী, ছেলে সহ পাঁচজন। আহতদের কোচবিহারে এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস।
বাড়ির লোকেরা তৃণমূলকে ভোট না দেওয়ার মাশুল গুনতে হল দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে। গতকাল রাতে ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার মালিওর দুই নম্বর পঞ্চায়েত এলাকায়। আক্রান্ত ছাত্রীর নাম রাহানুর খাতুন। হাতে গুলি লাগায় মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাঁকে।  রাহানুর খাতুনের বৌদিকেও মারধর করে বলে অভিযোগ। রাহানুর খাতুনের বৌদি সন্তানসম্ভবা ছিলেন বলে জানা গেছে।  তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন আহতের পরিবারের সদস্যরা।



First Published: Wednesday, July 24, 2013 - 18:15


comments powered by Disqus