ফের আদালতে পঞ্চায়েত জট! বাড়তে পারে দফা

Last Updated: Friday, May 24, 2013 - 21:19

পঞ্চায়েত ভোটের জট ফের গড়াতে পারে আদালতে। রাজ্য সরকার প্রয়োজনীয়  নিরাপত্তাকর্মীর ব্যবস্থা করতে না পারলে আদালতে যেতে পারে নির্বাচন কমিশন। গরমের ছুটির পর হাইকোর্ট খুললেই  রাজ্য সরকারের ব্যর্থতার বিষয়টি কমিশন আদালতের নজরে আনতে পারে। সশস্ত্র বাহিনী চেয়ে আজ পাঞ্জাব, মধ্যপ্রদেশ ও ওড়িশাকে চিঠি দিয়েছে রাজ্য সরকার। আগেই চিঠি পাঠানো হয়েছে বিহার, অসম ও ছত্তিশগড় সরকারের কাছে। 
পঞ্চায়েতের প্রথমদিন ভোট নটি জেলায়। বুথের সংখ্যা প্রায় ৩৬ হাজার।  ৭০ শতাংশ বুথই স্পর্শকাতর । হাইকোর্টের নির্দেশ মানতে হলে শুধুমাত্র প্রথম দফা ভোটের দিন বুথ নিরাপত্তায় সশস্ত্র পুলিস প্রয়োজন প্রায় পঞ্চাশ হাজার।  রাজ্য দিতে পারবে  ৪৫ হাজার সশস্ত্র পুলিস। ঘাটতি থাকছে  পাঁচ হাজার নিরাপত্তা কর্মীর। বুথ নিরাপত্তা ছাড়াও ভোটের দিন অন্যান্য ক্ষেত্রেও নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজন হয় সশস্ত্র পুলিশকর্মীর। প্রথম দফার ক্ষেত্রে এই সংখ্যা প্রায় ২৫ থেকে ৩০ হাজার । অর্থাত্‍ ঘাটতি দাঁড়াচ্ছে প্রায় ৩৫ হাজার। 
 
রাজ্য সরকার কোথা থেকে এই বাহিনী আনবে তা জানতে ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারকে চিঠি লিখেছে কমিশন। চিঠিতে জানতে চাওয়া হয়েছে স্পর্শকাতর বুথ, অতি স্পর্শকাতর বুথের নিরাপত্তার পাশাপাশি মনোনয়ন পত্র জমা থেকে প্রার্থীদের নিরাপত্তা, এত কম পুলিসকর্মী দিয়ে কীভাবে সুনিশ্চিত করবে রাজ্য সরকার। এখনও এই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেনি সরকার। এরমধ্যেই শনিবার দুশো দশ জন পর্যবেক্ষকের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছে কমিশন।
  
নিরাপত্তা নিয়ে কমিশন ও রাজ্য সরকারের মধ্যে যে জট তৈরি হয়েছে তা দূর করতে বাড়ানো হতে পারে নির্বাচনের দফা।
বাড়তে পারে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দফা
দফা বাড়লে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে নির্বাচন শেষ করা সম্ভব হবে না। নতুন করে বিজ্ঞপ্তি জারি করার সময় আর নেই।
 
যদি পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ছাড়াই ভোট করতে চায় রাজ্য। সেক্ষেত্রে ফের আদালতে যেতে পারে কমিশন।
বিহার, ঝাড়খন্ড, ওড়িশা, ছত্তিশগড় থেকে বাহিনী চেয়েছে রাজ্য। কিন্তু প্রতিবেশী রাজ্যগুলি আদৌও সেই বাহিনী পাঠাবে কিনা, তা নিয়েও প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। গরমের ছুটির পর তেসরা জুন খুলবে কলকাতা হাইকোর্ট। আদালতের রায় অনুযায়ী রাজ্য নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে পারেনি এই অভিযোগ জানিয়ে সেদিনই ফের আদালতের দ্বারস্থ হতে পারে কমিশন।



First Published: Friday, May 24, 2013 - 21:19


comments powered by Disqus