মুকুলের সভার মাঝেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে, জেলায় জেলায় বেড়ে চলা দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ঠেকাতে নির্দেশ দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু দলনেত্রীর নির্দেশে যে বিশেষ কাজ হয়নি মঙ্গলবার তা স্বচক্ষে দেখলেন মুকুল রায়। বাঁকুড়ার ইন্দাসে তাঁর সামনেই প্রকাশ্য সমাবেশে এক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে বিষোদগার করল অন্য গোষ্ঠী। মুকুল রায়ের অবশ্য দাবি বিশৃঙ্খলাকারীরা সিপিআইএমের মদতপুষ্ট।  

Updated: Jan 23, 2013, 08:43 AM IST

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে, জেলায় জেলায় বেড়ে চলা দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ঠেকাতে নির্দেশ দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু দলনেত্রীর নির্দেশে যে বিশেষ কাজ হয়নি মঙ্গলবার তা স্বচক্ষে দেখলেন মুকুল রায়। বাঁকুড়ার ইন্দাসে তাঁর সামনেই প্রকাশ্য সমাবেশে এক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে বিষোদগার করল অন্য গোষ্ঠী। মুকুল রায়ের অবশ্য দাবি বিশৃঙ্খলাকারীরা সিপিআইএমের মদতপুষ্ট।  

মঙ্গলবার কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতি ও সিপিআইএমের সন্ত্রাসের প্রতিবাদে বাঁকুড়ার ইন্দাসে সমাবেশের ডাক দিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। সবে তখন সমাবেশ মঞ্চে এসেছেন তৃণমূল নেতা মুকুল রায়। আচমকাই সভায় উপস্থিত তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের একাংশ রবিউল হোসেনকে ফের ইন্দাসের ব্লক সভাপতি হিসেবে ঘোষণা করার দাবি জানাতে থাকেন। মুহূর্তেই সমাবেশ মঞ্চে শুরু হয়ে যায় তুমুল হইহট্টগোল, বিশৃঙ্খলা। বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে শেষমেষ মাইক হাতে নিতে হয় মুকুল রায়কে।
 
 
মুকুল রায় যাই দাবি করুন। ইন্দাসের কাছে তৃণমূল কংগ্রেসের গৌতম বেরা গোষ্ঠীর সঙ্গে রবিউল হোসেন গোষ্ঠীর বিরোধ সুবিদিত। দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষও নতুন কোনও ঘটনা নয়। কিছুদিন আগে রবিউল হোসেনকে তৃণমূলের ইন্দাস ব্লক সভাপতির পদ থেকে বরখাস্ত করে দল। দায়িত্ব দেওয়া হয় স্থানীয় বিধায়ক গুরুপদ মেটেকে। গুরুপদ মেটে আবার গৌতম বেরা গোষ্ঠীর ঘনিষ্ঠ। এই ঘটনা নিয়ে রবিউল হোসেন গোষ্ঠীর ক্ষোভ ছিলই। মঙ্গলবার মুকুল রায়ের উপস্থিতিতে তা সামনে আসায় দলের অস্বস্তি বাড়ল বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।