গুলির পরে রাতভর অত্যাচারের অভিযোগ পুলিসের বিরুদ্ধে

গুলির পরে রাতভর অত্যাচারের অভিযোগ পুলিসের বিরুদ্ধে

গুলির পরে রাতভর অত্যাচারের অভিযোগ পুলিসের বিরুদ্ধেগুলির পর এবার অত্যাচার।  তেহট্টে রাতভর গ্রামে ঢুকে তাণ্ডব চালাল পুলিস। অভিযোগ, তল্লাসির নামে মারধর, ভাঙচুর সবই চলে। চরম  নিগ্রহের স্বীকার হতে হয় মহিলাদেরও। তুলে নিয়ে  যাওয়া হয় বাড়ির পুরুষদের। স্বভাবতই, পুলিসের গুলিতে এক ব্যক্তির মৃত্যুর ২৪ ঘন্টা পরও আতঙ্ক তটস্থ তেহট্ট। থমথমে হাউলিয়া মোড় সংলগ্ন বাজার এলাকা। 

নতুন করে অশান্তি এড়াতে মোতায়েন রয়েছে বিশাল পুলিশবাহিনী। আর এই পুলিসেই এখন আতঙ্ক এলাকাবাসীর। আতঙ্কিত বাসিন্দারা বলছেন, বুধবার রাতভর তল্লাসির নামে হাউলিয়া মোড় সংলগ্ন দেড় কিলোমিটার এলাকায় পুলিস যা করেছে তাকে তাণ্ডব বললেও কম বলা হয় । বাড়িঘরে এখনও জ্বলজ্বল করছে অত্যাচারের দগদগে চিহ্ন। অভিযোগ, নতুন পাড়া, পিডব্লিউডি মোড়ের  বাড়ি বাড়ি ঢুকে পুলিস অত্যাচার চালিয়েছে। মারধর, গালিগালাজ, ভাঙচুর, চলেছে সবই। অশ্রাব্য গালিগালাজের সঙ্গেই চলে শারীরিক নিগ্রহ। পুলিসের ভূমিকায় নতুন করে ক্ষোভ ছড়িয়েছে তেহট্টের মানুষের মধ্যে।

পুলিসি নিগ্রহ থেকে রেহাই পাননি বাড়ির মহিলারাও। চরম অত্যাচারের কথা বলতে গিয়ে অনেকেই লজ্জায় মুখ লুকিয়েছেন। যাঁরা মুখ খুলেছেন তাঁরাও ক্যামেরার সামনে সব কথা খুলে বলতে পারেননি। 

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে তেহট্ট থানায় দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করলেও, সাংবাদিকদের সামনে মুখ খোলেননি আইজি দক্ষিণবঙ্গ।

First Published: Thursday, November 15, 2012, 18:12


comments powered by Disqus