বারাসতকাণ্ডের প্রতিবাদ রাজনীতির অলিন্দে

দিল্লির ঘটনা নিয়ে সরব হলেও বারাসতের ঘটনায় কেন নীরব মুখ্যমন্ত্রী, এই প্রশ্ন তুলেই এবার আসরে নামল তৃণমূলের এক সময়কার জোট-বন্ধু কংগ্রেস। দিল্লির ঘটনার মতো বারাসতের ঘটনাতেও দ্রুত মামলা নিষ্পত্তির দাবি তুললেন প্রদেশ নেতারা। ধর্ষণকাণ্ড নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে সরব বিজেপিও। রবিবার রাজনৈতিক দলগুলির পাশাপাশি বারাসতকাণ্ড নিয়ে পথে নামেন সাধারণ মানুষ।

Updated: Dec 31, 2012, 11:40 AM IST

দিল্লির ঘটনা নিয়ে সরব হলেও বারাসতের ঘটনায় কেন নীরব মুখ্যমন্ত্রী, এই প্রশ্ন তুলেই এবার আসরে নামল তৃণমূলের এক সময়কার জোট-বন্ধু কংগ্রেস। দিল্লির ঘটনার মতো বারাসতের ঘটনাতেও দ্রুত মামলা নিষ্পত্তির দাবি তুললেন প্রদেশ নেতারা। ধর্ষণকাণ্ড নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে সরব বিজেপিও। রবিবার রাজনৈতিক দলগুলির পাশাপাশি বারাসতকাণ্ড নিয়ে পথে নামেন সাধারণ মানুষ।
দিল্লির গণধর্ষণকাণ্ডে মুখ খুলেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী থেকে তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রীরা। কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু বারাসত বা রাজ্যে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে কেন নীরব মুখ্যমন্ত্রী? এবার এই প্রশ্ন তুলেই সরব প্রদেশ কংগ্রেস নেতারা। বারাসতে নির্যাতিতা মহিলার পরিবারের সঙ্গে রবিবার দেখা করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দীপা দাশমুন্সি। তাঁর দাবি, ফাস্ট ট্র্যাক আদালত তৈরি করে দিল্লির ঘটনার মতো বারাসতকাণ্ডেও দ্রুত মামলার নিষ্পত্তি করে কঠোর শাস্তি দেওয়া হোক দোষীদের।   
 
বারাসতকাণ্ড সহ রাজ্যের একের পর এক ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে সরব রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। বারাসতের ঘটনার প্রতিবাদে রবিবার বিকেল সাড়ে তিনটে থেকে আধ ঘণ্টা যশোর রোডের চাঁপাডালি মোড় অবরোধ করেন বামফ্রন্টের নেতা-কর্মীরা। ঘটনার প্রতিবাদে রবিবার সন্ধ্যায় মোমবাতি মিছিল বের করেন ছাত্রছাত্রীরা। ডাকবাংলো মোড় থেকে শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় যায় ছাত্রছাত্রীদের এই মোমবাতি মিছিল।