শিল্পায়নে ধাক্কা: দুষ্কৃতী তাণ্ডবের জেরে রাজ্য ছাড়ার ইঙ্গিত প্রিয়া বিস্কুট কর্তৃপক্ষ

দুষ্কৃতী তাণ্ডবের জেরে রাজ্য ছাড়ার ইঙ্গিত দিল ডানকুনির প্রিয়া বিস্কুট কারখানা কর্তৃপক্ষ। অভিযোগ, কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে দু কোটি টাকা তোলা চায় দুষ্কৃতীরা। দাবি না মানায় গত বুধবার বিকেলে কারখানায় বোমা ছোড়ে দুষ্কৃতীরা।

Updated: Oct 25, 2013, 05:01 PM IST

দুষ্কৃতী তাণ্ডবের জেরে রাজ্য ছাড়ার ইঙ্গিত দিল ডানকুনির প্রিয়া বিস্কুট কারখানা কর্তৃপক্ষ। অভিযোগ, কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে দু কোটি টাকা তোলা চায় দুষ্কৃতীরা। দাবি না মানায় গত বুধবার বিকেলে কারখানায় বোমা ছোড়ে দুষ্কৃতীরা।
ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে কর্মীদের মধ্যে। সমস্যা মেটাতে সরকারের  হস্তক্ষেপ দাবি করেছে কারখানা কর্তৃপক্ষ। 
পুজোর পর শিল্পপতিদের নিয়ে বিজয়া সম্মিলনী  করার ব্যাপারে উদ্যোগী হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু এরই মাঝে তোলাবাজির শিকার হয়ে রাজ্য ছাড়ার ইঙ্গিত দিল প্রিয়া বিস্কুট কর্তৃপক্ষ। শ্রীরামপুরের সিমলায় দিল্লি রোডের ধারে একটি নতুন কারখানা গড়তে চলেছে কর্তৃপক্ষ। আঠারো বিঘা জমির ওপর প্রস্তাবিত কারখানা গড়ার জন্য ৫০ কোটি টাকা বিনিয়োগও করেছে সংস্থা। প্রায় ৬০০ মানুষের কর্মসংস্থান হবে এখানে। 
অভিযোগ, দু কোটি টাকা তোলা চেয়ে হুমকি দিতে শুরু করেছে দুষ্কৃতীরা। রাজি না হওয়ায় বুধবার বিকেলে চাকুন্দিতে সংস্থার অন্য একটি কারাখানায় দুটি বোমা ছোঁড়ে দুষ্কৃতীরা। ঘটনার পর প্রজেক্টের কাজ বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। পরে পুলিসি হস্তক্ষেপে ফের শুরু হয় কাজ। পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের হস্তক্ষেপ দাবি করেছে কর্তৃপক্ষ। সমস্যা না মিটলে রাজ্য ছাড়ারও ইঙ্গিত দিয়েছে প্রিয়া বিস্কুট কর্তৃপক্ষ।
ঘটনায় আতঙ্কিত কারখানার কর্মীরাও।
 
কারখানা কর্তৃপক্ষ কেন বিষয়টি নিয়ে সরকারের দ্বারস্থ হয় নি সে প্রশ্ন তুলেছেন শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। 
 
রাজ্যে শিল্পের বাতাবরণে এই ধরণের ঘটনা যে কাম্য নয়, তা স্বীকার করেছেন শিল্পমন্ত্রী। পুলিসি  নিরাপত্তায় যে কারখানা চালানো সম্ভব নয় তাও মানছেন সকলে। তবু এই ধরনের ঘটনা এড়ানো যাচ্ছে না।