পথ দুর্ঘটনাকে ঘিরে রণক্ষেত্র বারাসাত

পথ দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল বারাসত। গতকাল রাতে শতদল মোড় এলাকা লরির চাকায় পিষ্ট হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। এরপরই পরপর তিনটি লরিতে আগুন ধরিয়ে দেয় উত্তেজিত জনতা। ঘটনাস্থলে পুলিস পৌঁছলে শুরু হয় ইটবৃষ্টি। পরিস্থিতি সামলাতে লাঠিচার্জ করে পুলিস। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Updated: Nov 29, 2012, 10:17 AM IST

পথ দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল বারাসত। গতকাল রাতে শতদল মোড় এলাকা লরির চাকায় পিষ্ট হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। এরপরই পরপর তিনটি লরিতে আগুন ধরিয়ে দেয় উত্তেজিত জনতা। ঘটনাস্থলে পুলিস পৌঁছলে শুরু হয় ইটবৃষ্টি। পরিস্থিতি সামলাতে লাঠিচার্জ করে পুলিস। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
জগদ্ধাত্রী পুজোর বিসর্জনের জন্য যাচ্ছিল লরিগুলি। স্বাভাবিকভাবেই গাড়িতে প্রতিমা থাকায় গতিও বেশি ছিল না। রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে শোভাযাত্রা দেখছিলেন বহু মানুষ। হঠাতই একটি লরির চাকায় পিষ্ট হন এক ব্যক্তি। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানাচ্ছেন, ভিড়ে টাল সামলাতে না পেরে লরির সামনে সম্ভবত পড়ে গিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। এরপরই কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় বারাসতের শতদল মোড় এলাকা।
 
উত্তেজিত জনতা আগুন ধরিয়ে দেয় তিনটি লরিতে। খবর পেয়েই পৌঁছে যায় বারাসত থানার পুলিস। কিন্তু, পুলিসকে দেখে আরও মারমুখী হয়ে ওঠে এলাকাবাসী। শুরু হয় ইটবৃষ্টি। পরিস্থিতি সামলাতে লাঠিচার্জ করে পুলিস। ঘটনায় সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে স্থানীয় এক তৃণমূল কাউন্সিলরের স্বামীও রয়েছেন। আটক আরও বেশ কয়েকজন। আগুন লাগানোর খবর পেয়ে পৌঁছে যায় দমকল। কিন্তু, গণ্ডগোলের জেরে প্রথমদিকে কাজ শুরুই করতে পারেননি দমকলকর্মীরা। ঘণ্টাখানেকের চেষ্টায় আগুন নেভানো সম্ভব হয়। পরিস্থিতি থমথমে থাকায় বসানো হয় পুলিস পিকেট।