সামাজিক চাপে শঙ্কুদেব পন্ডার উলটপুরান

সামাজিক চাপে পড়ে শেষ পর্যন্ত সুরবদল করলেন তৃণমূল ছাত্রপরিষদের রাজ্য সভাপতি শঙ্কুদেব পণ্ডা। রাজ্যের তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সম্পাদকদের কাছে বার্তা দিলেন সংযত হওয়ার। হঠাত এই ভোলবদল নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। মমতার বাইটঃ সাতাশে অগাস্ট  

Updated: Sep 1, 2013, 09:44 PM IST

সামাজিক চাপে পড়ে শেষ পর্যন্ত সুরবদল করলেন তৃণমূল ছাত্রপরিষদের রাজ্য সভাপতি শঙ্কুদেব পণ্ডা। রাজ্যের তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সম্পাদকদের কাছে বার্তা দিলেন সংযত হওয়ার। হঠাত এই ভোলবদল নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।
২৭ অগাস্ট দলীয় ছাত্র সংগঠনের সদস্যদের উদ্দেশে তৃণমূল সুপ্রিমোর এই বার্তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ইটাহারে দলীয় নেতার স্ত্রী পরীক্ষায় নকল করতে গিয়ে ধরা পড়েন। বাধা দেওয়ায় আক্রান্ত হন কলেজের অধ্যক্ষ এবং অধ্যাপিকারাও। ওই নেতার স্ত্রীকে শ্লীলতাহানি করা হয়েছে বলেও অভিযোগ ওঠে।
 
এরপরও থামেনি শিক্ষাঙ্গনে অধ্যক্ষ নিগ্রহের ঘটনা। শনিবার উত্তর চব্বিশ পরগনার সন্দেশখালিতে কালীনগর কলেজের অধ্যক্ষ নিগৃহীত হন। একইদিনে
দক্ষিণ দিনাজপুরে হরিরামপুরে দেওয়ান আব্দুল গনি কলেজে নকলে বাধা দেওয়ায় আক্রান্ত হন গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ামক সনাতন দাস।
 
শিক্ষাঙ্গনে এই ধরনের ঘটনা রুখতে শনিবার কড়া বার্তা দেন রাজ্যপালও।
এই পরিস্থিতিতে প্রবল সামাজিক চাপের মুখে পড়ে  শেষপর্যন্ত দলের ছাত্র সংগঠনের জেলাসম্পাদকদের সংযত হওয়ার নির্দেশিকা জারি করলেন টিএমসিপির রাজ্য সভাপতি শঙ্কুদেব পণ্ডা।
 
যদিও নির্দেশিকা জারি হলেও পরিস্থিতি কতটা বদলাবে তা নিয়ে সন্দিহান খোদ গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অচিন্ত্য বিশ্বাস।