নোবেল চুরির পর ফের বিশ্বভারতীতে চুরি

নোবেল চুরির পর ফের বিশ্বভারতীতে চুরি। আজ সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভবনের অডিট সেকশন এবং কনফিডেনসিয়াল সেকশনে নজরে আসে চুরির ঘটনা। নগদ টাকার পাশাপাশি, খোয়া গিয়েছে কম্পিউটার হার্ড ডিস্ক এবং হিসেব সংক্রান্ত বেশ কিছু ফাইল। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিস। চুরির ঘটনা নিয়ে অবশ্য বিশ্ববিদ্যালয় মুখে কুলুপ এঁটেছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।

Updated: Mar 23, 2013, 05:55 PM IST

নোবেল চুরির পর ফের বিশ্বভারতীতে চুরি। আজ সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভবনের অডিট সেকশন এবং কনফিডেনসিয়াল সেকশনে নজরে আসে চুরির ঘটনা। নগদ টাকার পাশাপাশি, খোয়া গিয়েছে কম্পিউটার হার্ড ডিস্ক এবং হিসেব সংক্রান্ত বেশ কিছু ফাইল। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিস। চুরির ঘটনা নিয়ে অবশ্য বিশ্ববিদ্যালয় মুখে কুলুপ এঁটেছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।
২০০৪ সালের ২৫ মার্চ। বিশ্বভারতীর উত্তরায়ণ ভবনে সেদিন নজরে আসে, উধাও হয়ে গিয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নোবেল পদক।  এখনও নোবেল চুরির কিনারা করতে পারেনি পুলিস।
 
তার ঠিক ন বছর পর, সেই মার্চ মাসেই ফের চুরি হল বিশ্বভারতীতে। এবার কেন্দ্রীয় ভবনে। এই ভবনের অডিট এবং কনফিডেনশিয়াল, দুই দফতরে শনিবার সকালে চুরির ঘটনা নজরে আসে কর্মীদের। একটি কম্পিউটার ভাঙা অবস্থায় দেখতে পান তাঁরা। নগদ টাকা সহ রেজিস্ট্রারের দফতর থেকে খোয়া গিয়েছে হিসেব সংক্রান্ত ফাইল। খোয়া গিয়েছে একটি হার্ড ডিস্কও। এরপরই প্রশ্ন উঠেছে হিসেব সংক্রান্ত দুর্নীতি ঢাকতেই কী এই চুরির ঘটনা? বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অবশ্য মুখে কুলুপ এঁটেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভবনে সংবাদমাধ্যমের প্রবেশাধিকার বন্ধ করা হয়েছে। 
 
কেন্দ্রীয় ভবনের পিছন দিকেই নতুন ভবন নির্মাণের কাজ চলছে। তবে কেন্দ্রীয় ভবনে সব সময় পাহারায় থাকেন নিরাপত্তারক্ষীরা। নিরাপত্তারক্ষীদের এড়িয়ে কীভাবে এই চুরির ঘটনা ঘটল, তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।