ছাত্র সংঘর্ষ ঘিরে উত্তেজনা বিভিন্ন জেলায়

দফায় দফায় ছাত্র সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে শনিবার উত্তেজনা ছড়াল বেশ কয়েকটি জেলায়। কলেজ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র তোলা নিয়ে সংঘর্ষ বাধে বর্ধমানের খান্দরা কলেজ, বাঁকুড়ার শালতোড়া, খ্রিষ্টান এবং সোনামুখী কলেজে। বাঁকুড়ার তিনটি কলেজে আহত হন বেশ কয়েকজন। অন্যদিকে নরসিংহ দত্ত কলেজের অধ্যক্ষকে হুমকির অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে। শনিবার বর্ধমানের অন্ডাল থানার খান্দরা কলেজে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়ায় এসএফআই এবং টিএমসিপি। প্রথমে দু পক্ষের কথা কাটাকাটি শুরু হয়। সেখান থেকে পরে সংঘর্ষের সূত্রপাত। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিস।

Updated: Jan 6, 2013, 09:02 AM IST

দফায় দফায় ছাত্র সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে শনিবার উত্তেজনা ছড়াল বেশ কয়েকটি জেলায়। কলেজ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র তোলা নিয়ে সংঘর্ষ বাধে বর্ধমানের খান্দরা কলেজ, বাঁকুড়ার শালতোড়া, খ্রিষ্টান এবং সোনামুখী কলেজে। বাঁকুড়ার তিনটি কলেজে আহত হন বেশ কয়েকজন। অন্যদিকে নরসিংহ দত্ত কলেজের অধ্যক্ষকে হুমকির অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে। শনিবার বর্ধমানের অন্ডাল থানার খান্দরা কলেজে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়ায় এসএফআই এবং টিএমসিপি। প্রথমে দু পক্ষের কথা কাটাকাটি শুরু হয়। সেখান থেকে পরে সংঘর্ষের সূত্রপাত। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিস।
কলেজ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র তোলাকে কেন্দ্র করে ছাত্র সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে বাঁকুড়ার শালতোড়া, খ্রিষ্টান এবং সোনামুখী এই তিন কলেজে। তিনটি কলেজেই তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সমর্থকরা এসএফআই সমর্থকদের মনোনয়ন পত্র তুলতে বাধা দেয় বলে অভিযোগ। এমনকি বহিরাগতদের সঙ্গে নিয়ে এসএফআই সমর্থকদের মারধর করা হয় বলেও অভিযোগ।
যদিও তাদের বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেছেন টিএমসিপি সমর্থকরা।
অন্যদিকে ১০ জানুয়ারির আয়োজিত একটি ক্যাম্প ঘিরে হাওড়ার নরসিংহ দত্ত কলেজের অধ্যক্ষকে হুমকির অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে। এমনকি বিষয়টি মেটাতে হস্তক্ষেপ করতে হয় রাজ্যের এক মন্ত্রীকেও।