নেতাদের তুষ্ট করতে গিয়েই ডুবল সারদা সাম্রাজ্য, বিস্ফোরক সুদীপ্ত

২৪ ঘণ্টার সামনে বিস্ফোরক মন্তব্য সুদীপ্ত সেনের। তিন মাসের মধ্যে সব তথ্য প্রকাশ হবে বলে দাবি করলেন চিট ফান্ড কেলেঙ্কারিতে ধৃত সারদা কর্তা।  তিনি বলেন, "'তিন মাসের মধ্যে সব তথ্য প্রকাশ হবে, তখনই সব সত্য সামনে আসবে।" সারদা কাণ্ডে বহু রাজনৈতিক নেতা-মন্ত্রী জড়িত রয়েছেন। এতদিন তা ছিল অভিযোগ আর সন্দেহের পর্যায়ে। এবার সেই ধাঁধা নিজের খানিকটা স্পষ্ট করলেন সুদীপ্ত। হতাশ সুদীপ্ত মুখ খুললেন, "বহু নেতা মন্ত্রীকে তুষ্ট করতে হয়েছে।" ব্যবসা 'ম্যানেজ' করার খাতিরেই তা করতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এমনকি নেতাদের সন্তুষ্ট না করতে পারলে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করা হয় বলেও অভিযোগ সুদীপ্তর।

Updated: May 19, 2013, 10:33 AM IST

২৪ ঘণ্টার সামনে বিস্ফোরক মন্তব্য সুদীপ্ত সেনের। তিন মাসের মধ্যে সব তথ্য প্রকাশ হবে বলে দাবি করলেন চিট ফান্ড কেলেঙ্কারিতে ধৃত সারদা কর্তা।  তিনি বলেন, "'তিন মাসের মধ্যে সব তথ্য প্রকাশ হবে, তখনই সব সত্য সামনে আসবে।" সারদা কাণ্ডে বহু রাজনৈতিক নেতা-মন্ত্রী জড়িত রয়েছেন। এতদিন তা ছিল অভিযোগ আর সন্দেহের পর্যায়ে। এবার সেই ধাঁধা নিজের খানিকটা স্পষ্ট করলেন সুদীপ্ত। হতাশ সুদীপ্ত মুখ খুললেন, "বহু নেতা মন্ত্রীকে তুষ্ট করতে হয়েছে।" ব্যবসা 'ম্যানেজ' করার খাতিরেই তা করতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এমনকি নেতাদের সন্তুষ্ট না করতে পারলে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করা হয় বলেও অভিযোগ সুদীপ্তর।
নিজের সংস্থার কর্মীদের বিরুদ্ধেও ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন সুদীপ্ত স্যার। তাঁর অভিযোগ, "প্রতিধাপে কর্মীরা জালিয়াতি করেছে। বুঝেও কিছু করতে পারিনি"। বাজার থেকে লাগাম ছাড়া টাকা তছরুপ করা সত্ত্বেও নিজেকে ব্যবসা কাঁচা সুদাগর বলে মন্তব্য করেছেন সুদীপ্ত। তাঁর যুক্তি, "মানি মার্কেটিং বিজনেসের কেমেস্টি জানা ছিল না। জালিয়াতি করেছে সফওয়ার সংস্থাগুলিও।"
সারদা গোষ্ঠীর কর্ণধার সুদীপ্ত সেনকে আজ বারুইপুর আদালতে তোলা হয়। সুদীপ্তকে ১০ দিনের পুলিস হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা পুলিসের একটি টিম দমদম সেন্ট্রাল জেলে গিয়ে সুদীপ্ত সেনকে নিজেদের হেফাজতে নেয়। তবে আপাতত তাঁকে নিউটাউন থানাতেই রাখা হবে। সেখানে গিয়েই জেরা চালাবে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা পুলিস। গতকালই বিধাননগর আদালতে সুদীপ্ত সেনের হেফাজত চেয়ে আবেদন জানায় জেলা পুলিস।