আক্রান্তকে অভিযুক্ত প্রমাণের চেষ্টার `সিলসিলা` অব্যাহত শাসকের

Last Updated: Tuesday, January 8, 2013 - 09:13

আক্রান্ত রেজ্জাক মোল্লা হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে নাটক করছেন। রবিবারই এই মন্তব্য করেছিলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। কিন্তু এই প্রথম নয়। পার্কস্ট্রিট ও কাটোয়া ধর্ষণকাণ্ড, বর্ধমানে প্রদীপ তা, কমল গায়েন হত্যাকাণ্ড থেকে বর্ধমানের জেলা সভাধিপতির ওপর আক্রমণ--সব ক্ষেত্রেই এই ধরনের বিরূপ মন্তব্য করেছিলেন শাসক দলের নেতা-মন্ত্রীরা। আক্রান্তদের ওপরই ঘটনার দায় চাপানোর চেষ্টা করেছেন তাঁরা।
বিধানসভা ভোটের পর থেকেই বার বার আক্রান্ত হয়েছেন বিরোধীরা। কিন্তু এইসব ঘটনাকেই লঘু করে দেখানোর মরিয়া চেষ্টা করছে সরকার। কোথাও তাঁদের বক্তব্য ছোট ঘটনা। আবার কোথাও ঘটনাটির দায় চাপিয়ে দিয়েছেন বিরোধীদের ওপরই। শুধু বিরোধীরাই নন, পার্কস্ট্রিট ও কাটোয়া ধর্ষণকাণ্ডের ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম হয়নি।
পার্কস্ট্রিট ধর্ষণকাণ্ডকে সাজানো ঘটনা বলে মন্তব্য করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। আর পুলিস কমিশনারের বক্তব্য ছিল ষড়যন্ত্র করে সরকারের বিরুদ্ধে কুংসা ছড়ানোর চেষ্টা হচ্ছে। পার্কস্ট্রিট ধর্ষণকাণ্ডকে সাজানো ঘটনা বলে মন্তব্য করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। আর পুলিস কমিশনারের বক্তব্য ছিল ষড়যন্ত্র করে সরকারের বিরুদ্ধে কুংসা ছড়ানোর চেষ্টা হচ্ছে।  
কাটোয়া ধর্ষণকাণ্ডে নির্যাতিতা মহিলার স্বামী সিপিআইএম কর্মী বলে বিরূপ মন্তব্য করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। 
বর্ধমানের দুই সিপিআইএম নেতা প্রদীপ তা, কমল গায়েন খুনের ঘটনাতেও বিরোধীদের ওপরই দায় চাপিয়েছিলেন শাসক দলের নেতা-মন্ত্রীরা। সিপিআইএমের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই ওই দুই নেতা খুন হয়েছেন বলে তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়েছিল।
বর্ধমানের জেলা সভাধিপতি উদয় সরকারের ওপর হামলার ঘটনাতেও একই ধারা অব্যাহত ছিল। যে নিরাপত্তারক্ষী সভাধিপতিকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছিলেন, তাঁকেই গ্রেফতার করেছে পুলিস।
রেজ্জাক মোল্লার ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম হয়নি। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে প্রবীণ বিধায়ক নাটক করছেন বলে মন্তব্য করেছেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।



First Published: Tuesday, January 8, 2013 - 09:13


comments powered by Disqus