আজ লাভপুর কাণ্ডের শুনানি, মনিরুল দিকেই সবার নজর

Last Updated: Monday, April 21, 2014 - 08:13

হাইকোর্টে আজ লাভপুর কাণ্ডের শুনানি। ২০১০ সালে লাভপুরের সালিশি সভায় তিন ভাইকে খুনের ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত তৃণমূল বিধায়ক মনিরুল ইসলাম। আজ লাভপুর থানার ওসিকে কেস ডায়রি-সহ আদালতে হাজির থাকার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি। এই মামলার তদন্তের পদ্ধতি নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন হাই কোর্টের বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত।

গত ১১ এপ্রিল অ্যাডভোকেট জেনারেল হাজির না থাকায় শুনানি হয়নি। কিন্তু অভিযোগকারী সানোয়ার শেখের আইনজীবীর আবেদনে সাড়া দিয়ে সানোয়ার শেখকে পুলিসি নিরাপত্তা দেওয়ারও নির্দেশ দেন বিচারপতি।

এদিকে, ভোটের আগে গতকাল ফের হুমকি দেন বীরভূমের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা লাভপুরের বিধায়ক মনিরুল ইসলাম।

রবিবার সাঁইথিয়ার হরিশাড়ায় নির্বাচনী সভায় মণিরুলের ফতোয়া, বিরোধী দলের কোনও সমর্থককে ভোট দিতে দেওয়া হবে না। লাভপুরের বিধায়ক বললেন, সিপিআইএম, কংগ্রেস, বিজেপি কোনও দলের সমর্থককেই ভোট দিতে দেবেন না।

এদিকে, বীরভূমের হারাইপুরে খুন হয়েছেন সিপিআইএম কর্মী শেখ হীরা। তৃণমূলের দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর জনসভায় যাওয়ার রাস্তায় বিস্ফোরক রাখাতেই গণপ্রহারে হীরা মৃত্যু হয়েছে।

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট রাজ্যের বৃহত্তম আর্থিক কেলেঙ্কারি সারদা কাণ্ডের তদন্তে গা ঝাড়া দিয়ে নেমেছে। গ্রেফতার করেছে সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেনের ছেলে আর দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রীকে। তারপরেই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীকে তুই-তোকারি করে আক্রমণ করে বসলেন মুখ্যমন্ত্রী। এক্কেবারে প্রকাশ্য জনসভায়। মালদায় নজিরবিহীনভাবে আক্রমণ করলেন চিদম্বরমকে।

চিদম্বরমকে অশালীন আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রীর। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী চিদম্বরমে চিদু দা বলে কটাক্ষ করলেন তৃণমূল নেত্রী। বললেন, চিদু দা মানে চিদম্বরম দা। ভারতবর্ষের যিনি ক্ষতি করেছেন, কংগ্রসের ফিনান্স মিনিস্টার পুলিসকে, অফিসারদের ডেকে বলেছে তৃণমূলের ২-৩জনকে গ্রেফতার কর। কিছু তো করতে পারবে না তাই ওসব করছে।" এরপর চ্যালেঞ্জ নেওয়ার সুরে মমতা নাম বলেন, "ক্ষমতা থাকলে তুই আমায় টাচ কর। আমি মায়বতী, মুলায়ম নই, আমি মমতা।"



First Published: Monday, April 21, 2014 - 08:13


comments powered by Disqus