কাজলের বোন তনিশাকে মারধর করে বলিউডের এই অভিনেতা! বিস্ফোরক দাবি

গাড়ি চালকের মন্তব্য নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে 

Updated: Nov 8, 2018, 12:56 PM IST
কাজলের বোন তনিশাকে মারধর করে বলিউডের এই অভিনেতা! বিস্ফোরক দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদন : বিগ বস ৭-এর ঘর থেকে তাঁদের সম্পর্কের সূত্রপাত। বসের ঘরে থাকাকালীনই কাজলের বোন তানিশা মুখোপাধ্যায়ের প্রেমে হাবুডুবু খেতে শুরু করেন অভিনেতা আরমান কোহলি। আরমানের ইচ্ছেয় সায় দেন তানিশাও। ফলে সলমন খানের শো-এর মাঝ পথ থেকেই আরমান-তানিশা জুটি আলোচনার কেন্দ্রে উঠে আসে। বসের ঘর থেকে বেরোনোর পরও বেশ কিছুদিন একসঙ্গে দেখা যায় তানিশা-আরমানকে। কিন্তু শো থেকে বেরোনোর পর বেশিদিন স্থায়ী হয়নি আরমান কোহলি এবং তানিশা মুখোপাধ্যায়ের সম্পর্ক। আর এবার সেই সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন আরমান কোহলির বাবা গাড়ি চালক সোনু।

আরও পড়ুন : দীপাবলিতে যেন রং ছড়ালেন ঐশ্বর্য, অমিতাভের সঙ্গে গেলেন জুহুর বাড়িতে
সম্প্রতি এক সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে আরমান, তানিশার সম্পর্ক নিয়ে বেশ কিছু বিস্ফোরক উক্তি করেন। সোনু বলেন, আরমান কোহলি নাকি তানিশা মুখোপাধ্যায়কেও মারধর করতেন। অভিযোগ, একবার নয়, তিনবার তানিশার গায়ে হাত তোলেন তিনি। 


সোনু আরও বলেন, তানিশা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে আরমান কোহলির ঝগড়া ৩ বার দেখেছেন তিনি। সুযোগ পেলে, কাজলের বোনকেও নাকি আরমান মারধর করতেন। কিন্তু, ৩ বারের বার তানিশার গায়ে হাত তুললে, তিনিও উল্টে চড় কষান আরমানের গালে। এবং, যাওয়ার সময় বলে যান, জীবনে কখনও, কোনওদিন তিনি আর আরমানের কাছে ফিরে যাবেন না। শুধু তাই নয়, আরমান যা করছেন, তার জবাব একদিন তাঁকে দিতে হবে বলেও নাকি তানিশা যাওয়ার আগে বলে যান। ওই ঘটনার পর থেকে তানিশা আর কখনও আরমান কোহলির জীবনে ফিরে আসেননি বলেও জানান সোনু।

আরও পড়ুন : সিঁদুরে মাখামাখি, সইফের সঙ্গে দীপাবলিতে এ যেন অন্য করিনা
সম্প্রতি নিরু রনধাওয়া নামে এক মহিলাকে মারধর শুরু করেন আরমান কোহলি। মারের চোটে নিরুর নাক ফেটে যায় বলে অভিযোগ। এরপরই পুলিসের দ্বারস্থ হন নিরু। আরমানের গোয়ার খামার বাড়ি থেকে সোজা মুম্বই পুলিসের কাছে গিয়ে অভিনেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান তিনি।

আরও পড়ুন : লুকিয়ে বিয়ে সেরেই মা হচ্ছেন এই অভিনেত্রী
জানা যায়, নিরুর সঙ্গে নাকি ৩ বছর লিভ ইন করছিলেন আরমান। কিন্তু, ওই সম্পর্কে থাকাকালীনই একাধিক মেয়ের সঙ্গে রাত কাটানো শুরু করেন বলিউডের এই অভিনেতা। শুধু তাই নয়, নিরুর গায়েও তিনি প্রায়শই হাত তুলতেন। অত্যাচারের চোটে নিরু বাড়ি ছেড়ে চলে গেলে, আরমান হাতে পায়ে ধরে তাঁকে ফের বাড়িতে ফিরিয়ে আনতেন। কিন্তু, বিয়ের কথা বললে বার বার বেকে বসতেন আরমান। রাগের চোটে এরপর আরমান নিরুর গায়ে হাত তুলতেন বলেও অভিযোগ করেন ওই মহিলা।