এই প্রথম মমতার নাম করে তোপ দাগলেন বিজেপির মুকুল

 মখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি নিশানা করলেন একদা তৃণমূলের চাণক্য মুকুল রায়। এই প্রথম প্রাক্তন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম করে সরব হতে দেখা গেল তৃণমূলের প্রাক্তন 'সেকেন্ড ইন কম্যান্ড'কে। শুক্রবার কলকাতা বিমানবন্দরের বাইরে সাংবাদিকদের সামনে বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন, " মমতার সরকার এবং তৃণমূল আমাদের দলের কর্মীদের মারধর করছে। সমাবেশে আসতে বাধা দিতেই বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলা চালানো হচ্ছে। ভেঙে দেওয়া হচ্ছে বিজেপির অফিস। এটা গণতন্ত্রের জন্য ভাল নয়।" 

Updated By: Nov 10, 2017, 01:11 PM IST
এই প্রথম মমতার নাম করে তোপ দাগলেন বিজেপির মুকুল
ছবি- কমলিকা সেনগুপ্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন: আসতে আসতে খোলস ছাড়িয়ে নিজের ঝাঁঝ বাড়াচ্ছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। রানি রাসমনি রোডের সমাবেশ নিয়ে ফুটতে থাকা বিজেপি কর্মীদের বাধা দেওয়ার অভিযোগে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি নিশানা করলেন একদা তৃণমূলের চাণক্য মুকুল রায়। এই প্রথম প্রাক্তন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম করে সরব হতে দেখা গেল তৃণমূলের প্রাক্তন 'সেকেন্ড ইন কম্যান্ড'কে। শুক্রবার কলকাতা বিমানবন্দরের বাইরে সাংবাদিকদের সামনে বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন, " মমতার সরকার এবং তৃণমূল আমাদের দলের কর্মীদের মারধর করছে। সমাবেশে আসতে বাধা দিতেই বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলা চালানো হচ্ছে। ভেঙে দেওয়া হচ্ছে বিজেপির অফিস। এটা গণতন্ত্রের জন্য ভাল নয়।" 

আরও পড়ুন- ঋতব্রত মামলায় মুকুল রায়ের নাম জড়ালেন নম্রতা

জার্সি বদলের পর বিজেপির মঞ্চে এটাই মুকুল রায়ের প্রথম সভা। কত অনুরাগী আসছেন এই সভায়? জনসভা ভরানোর চ্যালেঞ্জে কত রান তুলতে পারলেন? একই সঙ্গে জনসভায় কী মুক্ত তিনি ছাড়াবেন, এই সব বিষয়েই বিশেষ নজর রয়েছে সবার। এমন অবস্থায় সভা শুরুর ঘণ্টা খানেক আগের 'মুকুল বক্তব্য'কে 'ফ্লপ শো' হিসেবেই দেখছে ত়ৃণমূল। মুকুল বিরোধীদের টিপ্পনী, লোক টানতে পারবেন না বলেই আগাম 'সন্ত্রাসে'র বাণী শুনিয়ে রাখলেন 'কাঁচরাপাড়ার কাঁচা ছেলে'। 

আরও পড়ুন- উড়লেও সূর্যকে ধরতে পারবেন না, নাম না করে মুকুলকে খোঁচা অভিষেকের

এদিন সমাবেশ শুরুর আগে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীকে আনতে বিমানবন্দরে শরীরে হাজির হন মুকুল রায়। তাঁর হাত ধরেই বিজেপির সদর দরজা দিয়ে গেরুয়া ঘরে ঢুকছেন তিনি। তাই নিজের আনুগত্য প্রকাশে কোনও রকম কার্পণ্য দেখাচ্ছেন না মুকুলও।  কৈলাস জয়ে লেটার মার্কস পেলেও আসল পরীক্ষায় পাশ করতে পারেন কিনা, রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মনেই সে বিষয়ে রয়েছে ধন্দ। যদিও প্রথমবার নেত্রীর বিরুদ্ধে তোপ দেগে জল্পনা বাড়িয়েছেন মুকুল নিজেই। তবে সাদা ফাইলের কতটা আজ খোলসা হবে সে বিষয়ে স্পিকটি নট এই সুকৌশলী নেতা। সভায় কী বলবেন আজ? ফাইলের কোন তথ্য উঠে আসবে আপনার বক্তব্যে? ২৪ ঘণ্টার সাংবাদিকের প্রশ্নবানে একগাল হাসি দিয়ে মুকুল রায় ভাঙা হিন্দিতে বলেন, "সব বাদ মে বোলেঙ্গে"। এই 'বাদ মে' আসলে কোন সময়ের ইঙ্গিত করছে, প্রশ্ন সব মহলেই। যদিও তৃণমূলের বিরুদ্ধে এই রাজনৈতিক লড়াইকে ধর্মযুদ্ধ হিসেবেই দেখছেন মুকুল রায়। ঘনিষ্ঠ মহলে তাঁর দাবি, "তৃণমূলে চলছে মুষল পর্ব। আমি নেমেছি ধর্ম যুদ্ধে।"