সম্মানের লড়াইয়ে জিতে চৌরঙ্গীতে শেষ হাসি তৃণমূলের

জোর  লড়াইয়ের পর চৌরঙ্গীতে শেষ হাসি হাসল তৃণমূল কংগ্রেসই।  গত লোকসভা ভোটে কংগ্রেসের চেয়ে ১৫০০ ভোটে এই আসনে পিছিয়ে ছিল তৃণমূল।  উপনির্বাচনে জয় এল ১৪০০ বেশি ভোটে।  এই জয়ের কৃতিত্ব  কাউন্সিলর ইকবাল আহমেদকেই দিচ্ছে দল। ইকবাল আহমেদের ৬২ নম্বর ওয়ার্ডেই সাড়ে ৬ হাজার ভোটে লিড পেয়েছে তৃণমূল।

Updated By: Sep 16, 2014, 08:03 PM IST
সম্মানের লড়াইয়ে জিতে চৌরঙ্গীতে শেষ হাসি তৃণমূলের

কলকাতা: জোর  লড়াইয়ের পর চৌরঙ্গীতে শেষ হাসি হাসল তৃণমূল কংগ্রেসই।  গত লোকসভা ভোটে কংগ্রেসের চেয়ে ১৫০০ ভোটে এই আসনে পিছিয়ে ছিল তৃণমূল।  উপনির্বাচনে জয় এল ১৪০০ বেশি ভোটে।  এই জয়ের কৃতিত্ব  কাউন্সিলর ইকবাল আহমেদকেই দিচ্ছে দল। ইকবাল আহমেদের ৬২ নম্বর ওয়ার্ডেই সাড়ে ৬ হাজার ভোটে লিড পেয়েছে তৃণমূল।

সারদা কাণ্ডে  বিরোধীদের লাগাতার আক্রমণের মধ্যে  চৌরঙ্গী বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট রীতিমতো প্রেস্টিজ ইস্যু ছিল তৃণমূলের কাছে।  লোকসভার ফলের নিরিখে চতুর্মুখী ভোট যুদ্ধে কংগ্রেসের থেকে ১৫০০ ভোটে পিছিয়ে ছিল তৃণমূল।  মঙ্গলবার উপনির্বাচনের ফলাফল অবশ্য উল্টে দিল সেই  হিসাব।  

তৃণমূলের প্রাপ্ত ভোট  ৩৮ হাজার ৩২৮।
বিজেপি পেয়েছে ২৩ হাজার ৯৮৪টি ভোট।
কংগ্রেসের সন্তোষ পাঠক পেয়েছেন ২৩ হাজার ৩১৭টি ভোট।
বামেরা পেয়েছে ৮ হাজার ৮৯০টি ভোট।
জামানাত বাজেয়াপ্ত হয়েছে বাম প্রার্থী  ফৈয়াজ আহমেদ খানের।

এগারোটির মধ্যে ছয়টি ওয়ার্ডে  লিড পেয়েছেন তৃণমূলের নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়  শুধুমাত্র ৪৫ ও ৪৬ ওয়ার্ডে  এগিয়ে থেকে শেষ করেছেন কংগ্রেসের সন্তোষ পাঠক এর মধ্যে রেয়েছে বেন্টিঙ্ক স্ট্রিট , ডালহৌসি , নিউমার্কেট এলাকা।
৪৭ , ৫৫ এবং ৫১ নম্বর ওয়ার্ডে অন্যদের টপকেছেন বিজেপির রীতেশ তিওয়ারি। ওয়েলিংটন, লেবুতলা অঞ্চলে ভাল ফল করেছে বিজেপি।
তবে দিনের শেষে বিজেপির সঙ্গে  তৃণমূলের ভোট ব্যবধান ১৪ হাজার ৩৪৪।

 মঙ্গলবারের গণনার পর এই কেন্দ্রে তৃতীয় স্থানে শেষ করেছে কংগ্রেস। দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে বিজেপি। দলের এই পারফরম্যান্সে খুশি বিজেপি নেতৃত্ব

মোদী ঝড় আটকানোর চ্যালেঞ্জ তো ছিলই , তার উপরে সারদা ইস্যুতে  বিরোধীদের লাগাতার আক্রমণও এই ভোটে তৃণমূলের মাথাব্যথার  কারণ ছিল।  তবে জয়ের পরে নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, কোনওভাবেই   বিরোধীরা তৃণমূল কংগ্রেসের দিক থেকে মানুষের মন ঘোরাতে পারেনি।

প্রেস্টিজ ফাইটে জিতলেও বিজেপির পদ্ম কাঁটা চিন্তায় রাখছে, মানছেন তৃণমূল নেতৃত্বও।