পঞ্জাবে সরকার গঠনে আপ-কংগ্রেসের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

পঞ্জাবে সরকার গঠনে আপ-কংগ্রেসের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। ভরাডুবির পথে অকালি-বিজেপি জোট। অধিকাংশ বুথ ফেরত সমীক্ষার ফলে এমনই পূর্বাভাস। গোয়া, উত্তরাখণ্ড, মণিপুরে সরকার গঠনের দৌড়ে কংগ্রেসের চেয়ে সামান্য এগিয়ে বিজেপি। গোটা রাজ্যে মাদকের রমরমা। বাদল পরিবারের বিরুদ্ধে একের পর এক দুর্নীতির অভিযোগ। বিজেপির অন্দরের খবর, এবার পঞ্জাবে প্রচারে যেতেই চাইছিলেন না নরেন্দ্র মোদী। বুথ ফেরত সমীক্ষা বলছে, তাঁর আশঙ্কা সত্যি হতে চলেছে।

Updated By: Mar 10, 2017, 08:16 PM IST
পঞ্জাবে সরকার গঠনে আপ-কংগ্রেসের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

ওয়েব ডেস্ক : পঞ্জাবে সরকার গঠনে আপ-কংগ্রেসের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। ভরাডুবির পথে অকালি-বিজেপি জোট। অধিকাংশ বুথ ফেরত সমীক্ষার ফলে এমনই পূর্বাভাস। গোয়া, উত্তরাখণ্ড, মণিপুরে সরকার গঠনের দৌড়ে কংগ্রেসের চেয়ে সামান্য এগিয়ে বিজেপি। গোটা রাজ্যে মাদকের রমরমা। বাদল পরিবারের বিরুদ্ধে একের পর এক দুর্নীতির অভিযোগ। বিজেপির অন্দরের খবর, এবার পঞ্জাবে প্রচারে যেতেই চাইছিলেন না নরেন্দ্র মোদী। বুথ ফেরত সমীক্ষা বলছে, তাঁর আশঙ্কা সত্যি হতে চলেছে।

ইন্ডিয়া টিভি ও CNN NEWS18-এর সমীক্ষা বলছে পঞ্জাবে ক্ষমতা দখল করতে চলেছে আপ। দ্বিতীয় স্থানে থাকছে কংগ্রেস। প্রায় মুছে যাওয়ার মুখে অকালি-বিজেপি জোট। ইন্ডিয়া নিউজ এবং NEWS 24-এর সমীক্ষায় আপ এবং কংগ্রেসের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। দুই সমীক্ষাই দুই দলকে সমসংখ্যক আসন দিয়েছে। ইন্ডিয়া টুডে অবশ্য বলছে পঞ্জাবে ক্ষমতা দখল করতে চলেছে কংগ্রেস। দিল্লির পর আপ পঞ্জাবেও ক্ষমতা দখল করলে তারাই হবে দেশের এক মাত্র আঞ্চলিক দল, যাদের হাতে থাকবে দুই রাজ্যের সরকার।

আরও পড়ুন- বুথ ফেরত সমীক্ষা: উত্তরপ্রদেশে এগিয়ে বিজেপি, তবে 'বহেনজি'ই এখন ভাইটাল ফ্যাক্টর

বুথ ফেরত সমীক্ষায় উত্তরাখণ্ডে সরকার বদলের ইঙ্গিত। অধিকাংশ  সমীক্ষাই বলছে দেবভূমি হাতছাড়া হচ্ছে কংগ্রেসের। তবে, ইন্ডিয়া টিভি পাহাড়ি রাজ্যে কংগ্রেস-বিজেপির হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিচ্ছে।  বুথ ফেরত সমীক্ষা বলছে গোয়ায় এগিয়ে রয়েছে বিজেপি। বিধানসভা ত্রিশঙ্কু হলে আপের সমর্থন নিয়ে কংগ্রেস, বিজেপিকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলতে পারে, এমন সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

মণিপুরে কংগ্রেস-বিজেপি দু-দলের কেউই ম্যাজিক ফিগারে পৌছতে পারবে না, এমন সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে। বুথ ফেরত সমীক্ষা বলছে, সরকার গঠনে ছোট দলগুলি বড় ভূমিকা নিতে পারে। পাঁচ রাজ্যে শেষ হাসি কে হাসবে তা আর কয়েকঘণ্টার মধ্যেই স্পষ্ট হয়ে
যাবে।