‘নামাজবাদী’ পার্টি প্রধানের বিষ্ণু মন্দির বানানোর অধিকার নেই, অখিলেশকে তোপ অমর সিংয়ের

বিজেপির দিকে এক পা বাড়িয়েই রয়েছেন অমর সিং। দলের সঙ্গে তাঁর সংঘাত চরমে। এরকম এক অবস্থায় সপা-র ধর্মনিরপেক্ষ ভাবমূর্তি ফাঁস করে দেবেন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় হুমকি দিলেন অমর সিং। পাশাপাশি দলের নেতা আজম খানের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন অমর সিং।

Updated By: Aug 27, 2018, 10:32 AM IST
‘নামাজবাদী’ পার্টি প্রধানের বিষ্ণু মন্দির বানানোর অধিকার নেই, অখিলেশকে তোপ অমর সিংয়ের

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিজেপির দিকে এক পা বাড়িয়েই রয়েছেন অমর সিং। দলের সঙ্গে তাঁর সংঘাত চরমে। এরকম এক অবস্থায় সপা-র ধর্মনিরপেক্ষ ভাবমূর্তি ফাঁস করে দেবেন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় হুমকি দিলেন অমর সিং। পাশাপাশি দলের নেতা আজম খানের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন অমর সিং।

আরও পড়ুন-প্রধানমন্ত্রী হতে নয়, মতাদর্শের লড়াই লড়ছি, লন্ডনে দাবি রাহুলের

সম্প্রতি সপা নেতা আজম খান অমর সিংকে কেটে টুকরো করা উচিত বলে মন্তব্য করেন। তার পরেই সপা নেতৃত্বকে লক্ষ্য করে তোপ দাগলেন অমর সিং। ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করে অমর সিং বলেন, ‘অখিলেশ ‌যা‌দব, বিষ্ণু মন্দির বানানোর অধিকার তোমার রয়েছে! তুমি সমাজবাদী পার্টির প্রধান নও, নামাজবাদী পার্টির প্রধান। তোমার মুখে বিষ্ণু মন্দির তৈরির কথা মানায় না। তোমার বাবার রাজনৈতিক পুত্র আজম খান হুমকি দিয়েছে, অমর সিংয়ের মতো লোককে কেটে টুকরো করে ফেলা উচিত। ওর মেয়েদের ওপরে অ্যাসিড ছোঁড়া উচিত। মেয়ে তোমার পরিবারেও রয়েছে।’

যাদব পরিবারের সঙ্গে তাঁর পুরনো সম্পর্কের কথা টেনে এনে অমর সিং বলেন, ‘তোমাদের পরিবারের ‌যখন চরম গন্ডগোল, আইনি ঝামেলায় নাজেহাল তখন এই অমর সিংই তা সামাল দিয়েছিল। আর আমি পার্টির জন্য ‌যখন জেল খেটেছিলাম তখন আমার স্ত্রী, মেয়ের পাশে তোমরা কেউ দাঁড়াওনি। তোমাদের সবার আসল রূপ আমি প্রকাশ করে দেব।’

অমর সিং আরও বলেন, ‘ধর্মনিরপেক্ষতার নাম করে তোমরা ‌নিজেদের আত্মসম্মান জলাঞ্জলী দিচ্ছ। ধর্ম নিরপেক্ষতার অর্থ ‌যদি আত্মসম্মান ত্যাগ ও নিজেকে হিন্দু বলতে লজ্জা পাওয়া বোঝায় তাহলে আমি ধর্ম নিরপেক্ষ নই। গোটা দেশে সপার সেকুলার মুখোস আমি খুলে দেব।’

আরও পড়ুন-রোগী মৃত্যু ঘিরে ধুন্ধুমার এনআরএস হাসপাতালে

সমাজবাদী পার্টি নেতা আজম খানকে মেহমুদ গজনি, তৈমুর লংয়ের সঙ্গে তুলনা করেন অমর সিং। বলেন, ‘এই লোকটা আমাকে কেটে ফেলার কথা বলে! আমার মেয়েকে অ্যাসিড দিয়ে স্নান করানোর কথা বলে! আমি দেশের গোটা হিন্দু সমাজকে এই কথা বলব। এর জন্য ‌যদি আমাকে সাম্প্রদায়িক তকমা মেলে তাহলে মিলুক। উত্তর প্রদেশের প্রতিটি গ্রামে গ্রামে আমি আজম খানের ওই হুমকির তথা বলব। ধর্ম নিরপেক্ষতার মানে ‌যদি আত্মসম্মান ত্যাগ করা হয় তাহলে আমি তা করতে পারব না। প্রাক্তন রাষ্চ্রপতি কালাম ও স্বাধীনতা সংগ্রামী আসফাকউল্লাহ খানকে আমি শ্রদ্ধা করি কিন্তু এই সুলতান মামুদকে নয়। আজম খান প্রধানমন্ত্রী আতঙ্কবাদী বলে। ভারত মাতাকে গরু বলে। ওর ‌যেসব বিতর্কিত বক্তব্যের ভিডিও আমার কাছে রয়েছে তা উত্তরপ্রদেশের প্রতিটি মহল্লায় বড় পর্দায় দেখাব। তা ‌যদি না করতে পারি তাহলে আমি ক্ষত্রিয় নই।’