কংগ্রেসের ৮৫ শতাংশ লুঠের টাকা দেশবাসীর ব্যাঙ্কে ১০০ শতাংশ পৌঁছে দিয়েছি: মোদী

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর হাত ধরে শুরু হয় প্রবাসী ভারতীয় দিবস। সে কথা স্মরণ করে মোদী বলেন, বিদেশে যে প্রান্তেই ভারতীয়রা থাকুক না কেন, তাঁরা সে দেশের রীতিনীতি-সংস্কৃতিকে সম্মান জানিয়েছেন

Updated By: Jan 22, 2019, 04:10 PM IST
কংগ্রেসের ৮৫ শতাংশ লুঠের টাকা দেশবাসীর ব্যাঙ্কে ১০০ শতাংশ পৌঁছে দিয়েছি: মোদী
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিজের কেন্দ্র কাশীতে জাঁকজমকভাবে পালন হচ্ছে প্রবাসী ভারতীয় দিবস। উপস্থিত রয়েছেন মরিসাসের প্রধানমন্ত্রী প্রবীন্দ কুমার যুগোনাথ, বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ-সহ গোবলয়ের মুখ্যমন্ত্রীরা। লক্ষ্য ছিল প্রবাসী ভারতীয়দের সামনে নতুন ভারতকে তুলে ধরা। তবে, বিরোধীদের কটাক্ষ, সে পথে না গিয়ে ভোটের মুখে ‘আমরা-ওরা’ রাজনীতির কথাই বেশি শোনা গেল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর গলায়।

ভিন দেশের প্রধানমন্ত্রী এবং প্রবাসীদের সামনে এ দিন নরেন্দ্র মোদী তুলে ধরলেন কংগ্রেস সরকারের দুর্নীতির খতিয়ান। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর মন্তব্য তুলে ধরেন। রাজীব গান্ধীর নাম না করে মোদীর কটাক্ষ, তিনি বলেছিলেন দিল্লি থেকে পাঠানো অনুদানের মাত্র ১৫ শতাংশ পৌঁছত গ্রামে। বাকি ৮৫ শতাংশ উধাও হয়ে যেত। নরেন্দ্র মোদীর কথায়, প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন যদি কেউ রোগ ধরতে পারেন, তার পরও ওই দল ১০-১৫ বছর ক্ষমতায় ছিল। কিন্তু রোগ জানা সত্ত্বেও চিকিত্সার প্রয়োজন বোধ করেনি কংগ্রেস।

আরও পড়ুন- মহাকাশ থেকে কেমন দেখায় কুম্ভ মেলাকে, দেখুন ছবিতে

তবে, নরেন্দ্র মোদীর সরকার যে সে পথ অনুসরণ করেনি, তা ফলাও করে জানালেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি দাবি করেন, আগে যে ৮৫ শতাংশ দুর্নীতি হত, তা প্রযুক্তি মাধ্যমে গত সাড়ে ৪ বছরে ১০০ শতাংশ দেশবাসীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। কীভাবে? মোদীর যুক্তি, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, শিক্ষা, কৃষিঋণ, উজ্বল যোজনার মাধ্যমে সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে প্রায় ৫ লক্ষ ৮০ হাজার কোটি টাকা সরাসরি নাগরিকের অ্যাকাউন্টে পৌঁছে গিয়েছে। মোদীর অভিযোগ, কংগ্রেস সরকারও এই উদ্যোগ নিতে পারত। নিজেদেরকে শোধরানোর ইচ্ছাশক্তি ছিল না তাদের।

আরও পড়ুন- ইভিএম হ্যাকের অভিযোগ করায় ‘প্রযুক্তিবিদ’ শুজার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করছে নির্বাচন কমিশন

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর হাত ধরে শুরু হয় প্রবাসী ভারতীয় দিবস। সে কথা স্মরণ করে মোদী বলেন, বিদেশে যে প্রান্তেই ভারতীয়রা থাকুক না কেন, তাঁরা সে দেশের রীতিনীতি-সংস্কৃতিকে সম্মান জানিয়েছেন। মরিসাস, পর্তুগাল, আয়ারল্যান্ডের নাম উল্লেখ করে মোদী বলেন, নেতৃত্বের ভূমিকায় দেখা গিয়েছে অনেক ভারতীয়দের। এ দিন সাড়ে ৪ বছরের সরকারের সাফল্য তুলে ধরলেন মোদী। তাঁর কথায়, ‘লোকাল সলিউশন, গ্লোবাল অ্যাপ্লিকেশন ভাবনায় কাজ করছে দেশ।’ ‘সব কা সাথ সব কা বিকাশ’ প্রসঙ্গ তুলে মহকাশ গবেষণা, আষুষ্মান ভারত, স্টার্ট আপ ইকো সিস্টেম, কৃষি উত্পাদন-সহ একাধাকি ক্ষেত্রে ‘নজিরবিহীন সাফল্যের’ খতিয়ান তুলে ধরেন নরেন্দ্র মোদী। উল্লেখ্য, নিজের কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে কার্যত ভোটের প্রচারের স্টাইলে কাশীর মানুষদের অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী। কুম্ভ মেলার সঙ্গে জাঁকজমকভাবে প্রবাসী ভারতীয় সম্মেলন আয়োজন করায় দরাজ কণ্ঠে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের প্রশংসা করলেন তিনি। এ দিন যে ভাবে কাশীর জয়গান করলেন মোদী, ইতিমধ্যে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে, তা হলে ফের কাশী কেন্দ্র থেকেই লড়ছেন নরেন্দ্র মোদী?