ক্রিকেট-ভক্তকে ক্ষুব্ধ বিরাটের নির্দেশ, দেশ ছেড়ে চলে যান

একের পর এক টুইট-বোমার বিধ্বস্ত করা হয় কোহলিকে। 

Updated By: Nov 7, 2018, 06:37 PM IST
ক্রিকেট-ভক্তকে ক্ষুব্ধ বিরাটের নির্দেশ, দেশ ছেড়ে চলে যান

নিজস্ব প্রতিনিধি : জন্মদিনে নতুন অ্যাপ লঞ্চ করেছিলেন তিনি। সেই অ্যাপ-এর মাধ্যমেই ভক্তদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষার চেষ্টা করছিলেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক। আর সেখানেই বিপত্তি। ভক্তদের প্রশংসা বিরাট দুই হাত ভরে নিলেন। কিন্তু সমালোচনা হজম করতে পারলেন না। বিরূপ প্রতিক্রিয়া জাহির করে ফেললেন প্রকাশ্যেই। দেশের অধিনায়কের এমন ধৈর্যচ্যুতি অবশ্য ভাল চোখে দেখলেন না ক্রিকেটপ্রেমীরা। মাঠে দেশের জন্য ভুড়ি ভুড়ি রান করা বিরাটকেও তুলোধনা করতে ছাড়লেন না তাঁরা। একদিকে বিরাট। অন্যদিকে বিস্তৃত ভক্তকূল। লড়াইয়ে সরগরম হয়ে উঠল সোশ্যাল মিডিয়া।

আরও পড়ুন-  'গাধা' নিয়ে চলছে পাকিস্তান ক্রিকেটে প্রবল বিতর্ক

এক ভক্তের টুইট পড়ছিলেন বিরাট। তাতে লেখা ছিল, বিরাট কোহলির ব্যাটিংয়ে আমি কিছু স্পেশাল দেখতে পাই না। ভারতীয়দের থেকে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের  ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং দেখতে আমি বেশি পছন্দ করি। সেই ক্রিকেটপ্রমীর এমন মন্তব্য মোটেও ভালভাবে নেননি বিরাট। উল্টে তাঁর উপর ঝাঁপিয়ে পড়েন টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন। তার পরই বলেন, আমার মনে হয় আপনার অন্য কোনও দেশে গিয়ে থাকা উচিত। আপনি এই দেশে বসবাস করবেন আর অন্য দেশকে ভালবাসবেন! আমি আমাকে পছন্দ না-ই করতে পারেন। তাতে আমার বিন্দুমাত্র আপত্তি নেই। কিন্তু আমার মনে হয় আপনার এই দেশ থেকে বেরিয়ে অন্য কোথাও গিয়ে থাকা উচিত। আপনি সবার আগে নিজের অগ্রাধিকার ঠিক করুন। 

আরও পড়ুন-  এক ওভারে ৪৩ রান, রেকর্ড

এক ক্রিকেট-ভক্তের কথা কোহলির পছন্দ না-ই হতে পারে। কিন্তু তার জন্য তিনি কাউকে দেশ ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিতে পারেন না। এই দাবি তুলেই একদল সমর্থক বিরাটের কথার বিরোধিতা শুরু করেন। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সেই বিরোধিতা তীব্র আকার নেয়। এক টুইটার ইউজার লেখেন, আমি নিজের অগ্রাধিকার ঠিক করে ফেলেছি। আমেরিকায় চলে যাব আমি। কারণ, আমি ক্রিকেট খেলাটাই পছন্দ করি না। একজন তো সরাসরি লেখেন, কাউকে দেশ ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়ার অধিকার তোমার নেই বিরাট। একের পর এক টুইট-বোমার বিধ্বস্ত করা হয় কোহলিকে।