কোটিপতি হয়ে গেলেন হিমা দাস

ভারতের এই সোনার মেয়ের ভবিষ্যত নিয়ে আর কোনও চিন্তা রইল না।

Updated: Aug 10, 2018, 01:57 PM IST
কোটিপতি হয়ে গেলেন হিমা দাস

নিজস্ব প্রতিনিধি : আসামের প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে তাঁর উঠে আসা। নগাঁও জেলার ঢিং গ্রাম থেকে বিশ্বের দরবারে নিজেকে তুলে ধরেছেন হিমা দাস। অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের ৪০০ মিটারে সোনা জিতে হিমা নাম তুলেছেন ইতিহাসে। কিন্তু এত বড় সাফল্যের পরও হিমার ভবিষ্যত নিয়ে কোথাও যেন একটা প্রশ্ন চিহ্ন থেকে যাচ্ছিল। হিমার বাবা সাধারণ চাষী। নিতান্ত সাধারণ পরিবার থেকে উঠে আসা মেয়ে হিমা। বিশ্ব অ্যাথলেটিক্সে নিজের জাত চেনানো হিমার ভবিষ্যত নিশ্চিত করে দিল এক স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট সংস্থা। হিমার সঙ্গে দুবছরের চুক্তি করল তারা। হিমাকে কোটি টাকায় চুক্তিবদ্ধ করল সেই সংস্থা।

আরও পড়ুন-  লর্ডসে বিরাটের দরকার ‘অনিলায়ন’

এর আগে ভারতীয় অ্যাথলিটদের মধ্যে বক্সার মেরি কম, বিজেন্দর সিং, টেবল টেনিসের তারকা মনিকা বাত্রা, বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারত্তোলক মীরাবাঈ চানুর সঙ্গে কয়েক কোটি টাকার চুক্তি করেছিল সেই সংস্থা। এবার হিমা দাসও সেই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হলেন। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ভারতের এই সোনার মেয়ের ভবিষ্যত নিয়ে আর কোনও চিন্তা রইল না। ঠিক কত টাকায় চুক্তিবদ্ধ হলেন হিমা, এই ব্যাপারে সংস্থাটি এখনই কিছু জানায়নি। তবে যতদূর জানা গিয়েছে, চুক্তির অঙ্কটা এক কোটি টাকার বেশিই। 

আরও পড়ুন-  ভারতের কাছে পরাজিত সেই আর্জেন্টিনা দলই চ্যাম্পিয়ন

এর আগে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতের কোনও মেয়ে সোনা জিততে পারেনি। হিমা প্রথম ভারতীয় মেয়ে যে ৫১.৪৬ সেকেন্ডে ৪০০ মিটার দৌড়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে সোনার স্বাদ পাইয়ে দিয়েছিলেন ভারতকে। ২০১২-তে কেরিয়ার শুরু করা হিমা জেলাস্তরে দারুন পারফর্ম করে প্রথম কোচের নজরে আসেন। এর পর ২০১৬-তে রাজ্যস্তরের ১০০ মিটার ইভেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন। তার পর প্রায় বিনা ট্রেনিংয়ে কোয়েম্বাটোরে আয়োজিত জুনিয়র অ্যাথলেটিক্স চ্যামেপিয়নশিপের ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিলেন। এর পর থেকেই গুয়াহাটির স্পোর্টস অ্যাকাডেমিতে কোচ নিপন দাসের তত্ত্বাবধানে প্র্যাকটিস শুরু করেন হিমা। 

আরও পড়ুন-  ম্যাচ হেরে হৃদয় জিতল শ্রীলঙ্কা, জাপানের মতো সভ্যতার নজির গড়ল পড়শি দেশ

এত বড় অঙ্কে চুক্তিবদ্ধ হয়ে হিমা বলছেন, ''দেশের অন্যতম সেরা স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট সংস্থার সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমি খুশি। এর পর আমাকে আর নিজের ভবিষ্যত নিয়ে ভাবতে হবে না। এখন আমি শুধু ট্রেনিং আর প্রতিযোগিতা নিয়ে থাকতে পারব। সামনে অনেকগুলো বড় চ্যাম্পিয়নশিপ রয়েছে। সেগুলোতে চ্যাম্পিয়ন হওয়াই আমার এখন প্রাথমিক লক্ষ্য।''

Tags: