আত্মহত্যার শ্যুটিং করতে গিয়েই ট্রেনের ধাক্কায় মৃত ২ ছাত্র

শৈশব বঙ্গবাসী কলেজ এবং সুনীল সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ছাত্র। শৈনদ্বীপকে সঙ্গে নিয়ে ফিল্ম তৈরি করছিলেন তাঁরা। অনেকদিন ধরেই চলছিল প্ল্যান। ছবির প্রতিপাদ্য বিষয়, এক বন্ধু আত্মহত্যা করতে যাচ্ছেন, আরেকজন তাঁকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন। সোমবার সন্ধ্যায় ছিল সিনেমার শ্যুটিং।

Updated: Feb 13, 2018, 10:27 AM IST
আত্মহত্যার শ্যুটিং করতে গিয়েই ট্রেনের ধাক্কায় মৃত ২ ছাত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন:    শ্যুটিং করতে গিয়ে ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু হল দুই বন্ধুর। বেলঘরিয়া ও দমদম স্টেশনের মাঝে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে।

ছোটো ছবি বানানোর স্বপ্ন দেখেছিল তিন বন্ধু সুনীল, শৈশব ও শৈনদ্বীপ। শৈশব বঙ্গবাসী কলেজ এবং সুনীল সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ছাত্র। শৈনদ্বীপকে সঙ্গে নিয়ে ফিল্ম তৈরি করছিলেন তাঁরা। অনেকদিন ধরেই চলছিল প্ল্যান। ছবির প্রতিপাদ্য বিষয়, এক বন্ধু আত্মহত্যা করতে যাচ্ছেন, আরেকজন তাঁকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন। সোমবার সন্ধ্যায় ছিল সিনেমার শ্যুটিং।

আরও পড়ুন: পুলকারের পিছনে ধাওয়া করে পুলিসের নাগালে নকল মদ তৈরির কারখানা

এদিন সিসিআর ব্রিজের নীচে সোমবার সন্ধেয় শ্যুটিং চলছিল। প্রথমবার একটি ইঞ্জিন চলে এলেও,  কোনওক্রমে রক্ষা পায় তারা। তারপর পুরো শ্যুটিংয়ের ডুবে যায় তিন জনের মন। পিছন থেকে যে কখন আপ বজবজ লোকাল চলে আসে, তা টের পাননি কেউই।ঘটনাস্থলেই মারা যায় শৈশব ও সুনীল। শৈনদ্বীপ বেঁচে যায়।

আরও পড়ুন: রক্ত দিয়ে অন্যের প্রাণ বাঁচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা যুবকের!

মর্মান্তিক এই ঘটনায় বাকরুদ্ধ শৈনদ্বীপ। চোখের সামনে দুই বন্ধুর এই পরিণতি কোনওভাবেই মেনে নিতে পারছেন না তিনি। বাক্যিহারা শৈনদ্বীপের শূন্য দৃষ্টিই যেন বলে দিচ্ছে তাঁর মনের কথা। আর সন্তানকে হারিয়ে দুই মায়ের শূন্য বুকের হাহাকার যেন মোচড় দিচ্ছে আর পাঁচ জনের মনেও।