বন্ধ্যা নয়, সন্তানসম্ভবা জোড়া যোনি নিয়ে জন্মানো মহিলা

Last Updated: Tuesday, April 18, 2017 - 15:41
বন্ধ্যা নয়, সন্তানসম্ভবা জোড়া যোনি নিয়ে জন্মানো মহিলা
ছবি সৌজন্যে : Caters News Agency

ওয়েব ডেস্ক: দুটি যৌনাঙ্গ নিয়ে জন্মেছেন তিনি। চিকিত্‍সকদের তরফে বলা হয়েছিল, তিনি কোনও দিনই 'মা' হতে পারবেন না। কিন্তু সেই নারীই এবার 'মা' হতে চলেছেন। হ্যাঁ, এটাই সত্য।

জন্ম থেকেই 'Uterus Didelphys'-এ আক্রান্ত বর্তমানে বছর বত্রিশের কৃস্তা সচওয়াব। কিন্তু 'অস্বাভাবিকতা'টি ধরা পড়ে যখন তাঁর বয়স মাত্র বারো বছর। 'Uterus Didelphys'-এর অর্থ হল, নারী শরীরে দুটি যৌনাঙ্গ, দুটি উম্ব ও এক জোড়া সারভিক্সের উপস্থিতি। আর একারণেই এর আগে দু'বার সন্তানের জন্ম দিতে ব্যর্থ হন কৃস্তা। ডাক্তার বলে দিয়েছিলেন যে, ভবিষ্যতে আর কখনও গর্ভবতী হতে পারবেন না কৃস্তা। কিন্তু, ডাক্তারকে ভুল প্রমাণ করে আবারও 'এক্সপেক্টিং' বত্রিশের যুবতী। কিন্তু নিজের শরীরে এমন 'অস্বাভাবিকতা' কখনও অনুভব করেননি তিনি?

কৃস্তা জানাচ্ছেন, "১২ বছর বয়সে Uterus Didelphys সণাক্ত হওয়ার পর আমি জেনেছিলাম যে, আমার শরীরে দুটি করে ইউটেরাস ও সারভিক্স। কিন্তু ৩০ বছর বয়সে এসে প্রথম নিজের শরীরে আমি পাশাপাশি দুটি যৌনাঙ্গের উপস্থিতি লক্ষ্য করি। যৌন মিলনের সময়ও আমি অতিরিক্ত যোনিটির উপস্থিতি বুঝতে পারতাম এবং বেশ অস্বস্তি বোধ করতাম এরজন্য। কিন্তু আমি ভাবতাম, এটাই বুঝি (অস্বস্তি) স্বাভাবিক যা সব মেয়েই অনুভব করে থাকে।" উল্লেখ্য, ০.৩ শতাংশ নারীর ক্ষেত্রে Uterus Didelphys আক্রান্ত হয়। জন্ম থেকে এই অস্বাভিকতা থাকলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রে এর লক্ষণগুলি প্রাকাশ না পাওয়ায় বোঝাই যায় না বিষয়টি। রোগটির সঠিক কারণ কী তা স্পষ্টভাবে জানা না গেলেও, জিনগত কারণে যে এই সমস্যা সৃষ্ট হয় সেবিষয়ে চিকিত্‍সকদের অনেকেই সহমত। তবে এর ফলে যৌন মিলনে খুব একটা সমস্যা দেখা দেয় না।

কৃস্তা ও তাঁর স্বামী কার্টনি দীর্ঘদিন ধরেই সন্তান চাইছেন। কিন্তু এর মধ্যেই দুই বার 'মিসক্যারেজ' হয়েছে কৃস্তার। আর এর জন্য রীতিমতো অবসাদগ্রস্থ এই দম্পতি। কিন্তু চিকিত্‍সকদের পর্যবেক্ষণকে ভুল প্রমাণ করে দিয়ে এবার আবার গর্ভবতী হতে পারার আনন্দে এখন সন্তান সুখের স্বপ্নে বিভোর এই দম্পতি। ২৪ ঘন্টা ডট কমের তরফ থেকেও তাঁদের জন্য রইল এক আকাশ শুভেচ্ছা। পৃথিবীতে আসুক নতুন প্রাণ। (আরও জানুন- কাঁচা আদাই হাজারো রোগ-ব্যাধির যম)



First Published: Tuesday, April 18, 2017 - 15:41
comments powered by Disqus