পান-গুটখা খেয়ে স্কাইওয়াকে পিক ফেললেই কড়কড়ে ১০০১ টাকা জরিমানা

৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে গড়ে তোলা হয়েছে অত্যাধুনিক এই স্কাইওয়াকটি। স্কাইওয়াকটি লম্বায় ৩৮০ মিটার ও চওড়ায় ১০ মিটার।

Updated: Nov 8, 2018, 12:16 PM IST
পান-গুটখা খেয়ে স্কাইওয়াকে পিক ফেললেই কড়কড়ে ১০০১ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদন : গুটখা বা পান খেয়ে স্কাইওয়াকে পিক ফেললে এবার গুনতে হবে চড়া মাশুল। কড়কড়ে ১০০১ টাকা জরিমানা গুতে হবে অভিযুক্তকে। উদ্বোধনের ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই 'বর্ণময়' স্কাইওয়াকের ছবি ছড়িয়ে পড়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তারপরই তত্পর হয়ে ওঠে প্রশাসন। দক্ষিণেশ্বর স্কাইওয়াক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে এবার নেওয়া হল কড়া পদক্ষেপ।

কালীপুজোর আগের দিন ৫ নভেম্বর, সোমবার দক্ষিণেশ্বর স্কাইওয়াকের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী। ৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে গড়ে তোলা হয়েছে অত্যাধুনিক এই স্কাইওয়াকটি। স্কাইওয়াকটি লম্বায় ৩৮০ মিটার ও চওড়ায় ১০ মিটার। স্কাইওয়াকের মাধ্যমে দক্ষিণেশ্বর মোড় থেকে সোজা মন্দিরে পৌঁছে যাবেন আম জনতা। অত্যাধুনিক এই স্কাইওয়াকে রয়েছে ১২টি চলমান সিঁড়ি, ৮টি সিঁড়ি ও ৪টি লিফট। একইসঙ্গে স্কাইওয়াকে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা থেকে সিসিটিভি সবই রয়েছে।

আরও পড়ুন, সকালে কালী মন্দিরে ঢুকতেই চোখে পড়ল 'ভয়ঙ্কর কাণ্ড', ধুন্ধমার বীরভূমে

সোমবার উদ্বোধনের পর মঙ্গলবার কালীপুজোর সকাল থেকে ভিড় উপছে পড়ে স্কাইওয়াকে। ট্রেনে, বাসে, লঞ্চে করে দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পুজো দিতে আসা পুণ্যার্থীর দলকে সটান উঠে পড়তে দেখা যায় স্কাইওয়াকে। কিন্তু, গরিমার স্কাইওয়াকে 'কলঙ্কের ছাপ' পড়তে সময় লাগেনি ২৪ ঘণ্টাও।

মঙ্গলবার বিকেলে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে স্কাইওয়াকের কিছু ছবি। যাতে দেখা যায়, নবনির্মিত স্কাইওয়াকের আনাচে কানাচে, যত্রতত্র পড়ে রয়েছে লাল রঙের পিক। গুটখা ও পান খেয়ে কাণ্ডজ্ঞানহীন কিছু মানুষ ঝাঁ চকচকে স্কাইওয়াকের উপর পিক ফেলেছেন। স্কাইওয়াকে পিকে ফেলার সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে সময় নেয়নি। হু হু করে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে সেই ছবি।

সিসিটিভির নজরদারি এড়িয়ে কী করে এই ঘটনা ঘটল, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে সব মহলেই। সমালোচনার মাঝেই নবনির্মিত স্কাইওয়াককে পরিচ্ছন্ন রাখতে এবার জরিমানার পথে হাঁটল প্রশাসন। গুটখা ও পান খেয়ে স্কাইওয়াকে পিক ফেললে জরিমানা হবে ১০০১ টাকা। মাইকিং করে চত্বরে ঘোষণা করা হচ্ছে জরিমানার কথা। তবে শুধু যে পান-গুটখার পিক তাই নয়, স্কাইওয়াকের উপর এদিন সকালে পড়ে থাকতে দেখা যায় আবর্জনা ভর্তি বালতিও।  

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. You can find out more by clicking this link

Close