কলকাতায় পুলিসের সঙ্গে সারদার এজেন্টদের ধস্তাধস্তি

মহাকরণে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচি ছিল সারদা গোষ্ঠীর এজেন্ট এবং আমানতকারীদের। কিন্তু মেয়ো রোডেই আটকে দেওয়া হল এজেন্ট এবং আমানতকারীদের। পুলিসের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় তাঁদের। এরপরই গান্ধী মূর্তির সামনে রাস্তার ওপর বসে পড়ে অবস্থান-বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন তাঁরা। এলাকায় প্রচুর পুলিস মোতায়েন করা হয়েছে। রাখা হয়েছে জলকামানও।

Updated: Apr 22, 2013, 08:03 PM IST

সারদা গোষ্ঠীর প্রতারণায় হাহাকার রাজ্যজুড়ে। সর্বস্বান্ত কয়েক লক্ষ এজেন্ট এবং গ্রাহক। রাজ্য সরকারের ভূমিকায় আজ দিনভর বিক্ষোভের ঝড় আছড়ে পড়ল কলকাতায়। গান্ধীমূর্তির পাদদেশে বিক্ষোভ-অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হন সারদা গোষ্ঠীর কয়েক হাজার এজেন্ট। এই ইস্যুকেই সামনে রেখে আজ রাস্তায় নামে যুব কংগ্রেসও।
সোমবার সকালে গান্ধীমূর্তির পাদদেশে বিক্ষোভে সামিল  সারদা গোষ্ঠীর কয়েকহাজার এজেন্ট। দুপুরে মহাকরণে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচিও ছিল  এজেন্ট এবং আমানতকারীদের। কিন্তু মেয়ো রোডেই তাঁদের আটকে দেওয়া হয়। পুলিসের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতেও জড়িয়ে পড়েন এজেন্টরা।  এরপর গান্ধী মূর্তির সামনে অবস্থান-বিক্ষোভে সামিল হন তাঁরা।
 
সারদা কাণ্ডে নাম জড়িয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ কুণাল ঘোষেরও। কুণাল ঘোষকে গ্রেফতারের দাবিতে, সোমবার গড়পাড় রোডে তাঁর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখান কংগ্রেস কর্মীরা। পুলিস বাধা দিলে দুপক্ষের ধস্তাধস্তিও হয়। যুব কংগ্রেসের হুঁশিয়ারি, তিনদিনের মধ্যে কুণাল ঘোষকে গ্রেফতার না করা হলে, মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখাবেন তাঁরা। চিটফান্ড কেলেঙ্কারির জেরে সারদা গোষ্ঠীর কর্ণধার সুদীপ্ত সেনকে গ্রেফতারের দাবিতে সোমবার মহাকরণের সামনে বিক্ষোভ দেখায় প্রদেশ যুব কংগ্রেস।