শিয়ালদহ বাজারের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের টাইম লাইন

Last Updated: Wednesday, February 27, 2013 - 11:11

আমরি অগ্নিকাণ্ডের আতঙ্ক ফিরে এল কলকাতায়। জগত্ সিনেমার পাশে সূর্য সেন মার্কেটে আগুন লেগে এখনও পর্যন্ত ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। আজ ভোররাতে বহুতল মার্কেট থেকে আগুনের শিখা দেখা যায়। কিছুক্ষণের মধ্যেই আগুন মার্কেটের ভিতর ছড়িয়ে পড়ে। তারপরই তা বদলে যায় মৃত্যুকূপে। দমকলের পঁচিশটি ইঞ্জিন ঘন্টাখানেকের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। পড়ুন ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের টাইম লাইন।
কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে চলছে অগ্নিকাণ্ডে মৃতদের ময়নাতদন্তের কাজ। ময়নাতদন্তের পর মৃতদেহ তুলে দেওয়া হবে পরিবারের সদস্যদের। হাসপাতালের বাইরে চলছে দীর্ঘ অপেক্ষা আর শোকের ছবি।
সন্ধ্যে ৬.০০--১৭ জনের দেহ সনাক্তকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন
বিকেল ৫.০০-- ময়নাতদন্তের পর দেহ তুলে দেওয়া হচ্ছে মৃতের পরিবারের হাতে
দুপুর ২.২০--উদ্ধারকার্য প্রায় শেষ
দুপুর ২.০০--এন আর এস হাসপাতালে যান রাজ্যপাল এম কে নারয়ায়নণ
দুপুর ১.৫৫--মেডিক্যাল কলেজে আহতদের দেখতে গেলেন রাজ্যপাল
দুপুর ১.৪০-- ঘটনাস্থলে পৌঁছল ফরেন্সিক দল

দুপুর ১২.১০টা-- দমকল ও পুলিশের তরফে জানানো হল আগুন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে৷ ভেতরে আর কেউ আটকে নেই৷

 নিজের দলের ক্ষমতা থাকা পুরসভাকে কাঠগড়ায় তুললেন মমতা
'শহর জুড়ে হয়ে রয়েছে জতুগৃহ', স্বীকার মুখ্যমন্ত্রীর
অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কমিটি গড়ার কথা বললেন মুখ্যমন্ত্রী। তিন দিনের মধ্যে রিপোর্ট পেশের নির্দেশ দেওয়া হল।
সকাল ১১.২৫-- আহতদের দেখতে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে মুখ্যমন্ত্রী৷
দেখুন মুখ্যমন্ত্রী কী বললেন
সকাল ১১.২৪-- মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা, অগ্নিকাণ্ডে মৃতদের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য সরকার। আহতদের দেওয়া হবে ৫০ হাজার টাকা।
মমতা বললেন, আমরি কাণ্ডের পর প্রত্যেককে নিয়ম মানতে বলা হয়েছিল কিন্তু কেউ নিয়ম মানছে না।
মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ১৯
সকাল ১১.০৮--ঘটনাস্থলে এলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মাইক হাতে তুলে নিলেন মমতা।
সকাল ১০.২৪টা- ঘটনাস্থলে এলেন বিরোধী দলনেতা সূর্যকান্ত মিশ্র। অগ্নিকাণ্ডের তদন্ত দাবি করেন তিনি৷ দেখুন সূর্যকান্ত মিশ্র কী বললেন
সকাল ১০টা-- উদ্ধারকার্য চালিয়ে যাচ্ছেন পুলিশ ও ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট গ্রুপের সদস্যেরা।  
অগ্নিকাণ্ডে মৃতের সংখ্যা ১৫ ছাড়াল।
সকাল ৯.৪৫-- মেডিক্যাল কলেজে সব মৃতদেহ রাখা হবে বলে ঠিক হল। ময়নাতদন্ত হবে মেডিক্যালেই। এনআরএস রাখা মৃতদেহ মেডিক্যালে আনার সিদ্ধান্ত। দেখুন মৃত্যুর মিছিল
সকাল ৯.৩০-- আগুন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে এল। প্রাথমিক অনুমান শট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছে।
শর্ট সার্কিট থেকেই এই আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিক অনুমান। পাঁচতলা বাজারের একতলায় প্রথম আগুন লাগে। পরে আগুন ছড়িয়ে পুরো চত্বরে। বাজারে কোনও রকম অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা ছিল না বলে খবর।

সকাল ৯টা -- ঘটনাস্থলে এলেন পুলিশ কমিশনার সুরজিত্ কর পুরকায়স্থ ও পুরসভার ডেপুটি মেয়র ফরজানা আলম৷ কিছু পরেই এলেন দমকলমন্ত্রী জাভেদ খান৷
কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে এল বেশ কয়েকটি মৃতদেহ। এনআরএসে একটি মৃতদেহ এসে পৌঁছল।
সকাল ৮.৫৫ টা-- ২৪ ঘণ্টাকে বিস্ফোরক তথ্য দিলেন তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক শিখা মিত্র।
স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক শিখা মিত্র বললেন, এক বছর আগেই তিনি মেয়রকে সূর্য
সেন মার্কেটের অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে বলেছিলেন।
সকাল ৮ টা-- উদ্ধার হল আরও বেশ কয়েকটি দেহ৷ বাজারে আটকে থাকা আরও কয়েক জনকে উদ্ধার করা হল৷
লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। শেষ খবর পাওয়া সূত্রের খবর মৃতের সংখ্যা ১২।
সকাল ৭টা-- ঘটনাস্থলে কলকাতা পুলিসের বড় কর্তারা। সূর্য সেন মার্কেটের চারপাশ ঘিরে ফেলা হল।
সকাল ৬.৩০টা--মার্কেটের ভিতর থেকে দমকলকর্মীরা পাঁচটি দেহ উদ্ধার করলেন।
মার্কেটের ভিতর প্লাস্টিক ও কাগজের বেশ কয়েকটি গুদাম রয়েছে।
সকাল
৬.১৫টা-- ঘটনাস্থলে দমকলের ২৫টি ইঞ্জিন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা
চালাচ্ছে। আশঙ্কা অন্তত ৬০ জন মানুষ আগুনের মধ্যে আটকে পড়েছেন।

সকাল
৬ টা-- ঘটনাস্থলে পৌঁছল পুলিশের বিপর্যয় মোকাবিলা দল৷ পৌঁছয় দমকলের আরও
৫টি ইঞ্জিন৷ দোতলার জানালা ভেঙে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা দমকলের৷
ভোর ৫টা-- রাতে বিভিন্ন দোকানের কর্মীরা এই মার্কেটে শুয়ে থাকেন। আগুনের মধ্যে বাজারে তারা আটকে পড়েছেন।
আমরি কাণ্ডের ছায়া শিয়ালদহের সূর্য সেন মার্কেটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানালেন ভোর ৩.৪৫ নাগাদ আগুন লেগেছে।
ভোর ৫.৪০টা-- আগুন ছড়াতে শুরু করল৷ ঘটনাস্থলে এল দমকলের আরও ১৫ টি ইঞ্জিন৷ ততক্ষণে আগুন দোতলায় ছড়িয়ে পড়েছে৷
ভোর ৫.৩০ টা-- আগুন আরও বিধ্বংসী চেহারা নিল।
কালো ধোঁয়ায় ছেয়ে গেল চারিদিক
ভোর ৪ টে-- ঘটনাস্থলে পৌঁছল দমকলের ৫ টি ইঞ্জিন৷ ঘিঞ্জি এলাকা হওয়ায় সমস্যায় পড়েন দমকলকর্মীরা৷
ভোর ৩.৪৫টা-- শিয়ালদহ চত্বরজুড়ে দেখা গেল আগুনের লেলিহান শিখা।

আজ ভোর চারটে নাগাদ শিয়ালদহ সূর্য সেন বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। দমকলের ২৫টি ইঞ্জিনের চেষ্টায় আগুন এখন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে। শর্ট সার্কিট থেকেই এই আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিক অনুমান। পাঁচতলা বাজারের একতলায় প্রথম আগুন লাগে। পরে আগুন ছড়িয়ে পুরো চত্বরে। বাজারে কোনও রকম অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা ছিল না বলে খবর।



First Published: Wednesday, February 27, 2013 - 19:19


comments powered by Disqus