জওয়ানহত্যার অপরাধীদের গ্রেফতারের দাবি প্রধানমন্ত্রীর

সেনাপ্রধানের পর খোদ প্রধানমন্ত্রী। পুঞ্চ সীমান্তে পাক সেনার হাতে দুই ভারতীয় জওয়ানের নৃশংস মৃত্যু নিয়ে এবার মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী জানান, এই ধরনের ঘটনা চলতে থাকলে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক রাখা সম্ভব নয়। নয়াদিল্লিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এ দিন প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়, সাম্প্রতিক কয়েকটি বৈরিতাপূর্ণ ঘটনার পর পাকিস্তানের সঙ্গে ভারত সম্পর্ক ঠিক কোন খাতে এগোবে? কিন্তু সে বিষয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলতে চাননি মনমোহন সিং।

Updated: Jan 15, 2013, 06:38 PM IST

সেনাপ্রধানের পর খোদ প্রধানমন্ত্রী। পুঞ্চ সীমান্তে পাক সেনার হাতে দুই ভারতীয় জওয়ানের নৃশংস মৃত্যু নিয়ে এবার মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী জানান, এই ধরনের ঘটনা চলতে থাকলে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক রাখা সম্ভব নয়। নয়াদিল্লিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এ দিন প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়, সাম্প্রতিক কয়েকটি বৈরিতাপূর্ণ ঘটনার পর পাকিস্তানের সঙ্গে ভারত সম্পর্ক ঠিক কোন খাতে এগোবে? কিন্তু সে বিষয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলতে চাননি মনমোহন সিং।
গত ৮ জানুয়ারি জম্মু কাশ্মীরের সীমান্ত নিয়ম লঙ্ঘন করে ভারতে ঢুকে পড়ে পাক সৈন্য। শুধু তাই নয়, দুই ভারতীয় জওয়ানকে বর্বরোচিত ভাবে হত্যা করে তারা। ঘটনায় দেশজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। ফলে ভারত সরকারের ওপরও চাপ বাড়ে ইসলামাবাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার। মৃত ল্যান্স নায়ক হেমরাজ সিংয়ের শিরোচ্ছেদ করে নিয়ে যায় পাকিস্তানি সেনা। হেমরাজের শরীরের বাকি অংশ ফিরিয়ে আনার জন্য কেন্দ্রের কাছে দফায় দফায় দরবার করে তাঁর পরিবার।
পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের দাবি তোলে বিরোধী দল ভারতীয় জনতা পার্টি। পাকিস্তান সম্পর্কিত সমস্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে বিরোধীদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে বলে সুষমা স্বরাজ ও অরুণ জেটলিকে গতকাল জানিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী।
গতকালই সীমান্ত বৈঠকের আগে সেনাপ্রধান বিক্রম সিং কার্যত হুঁশিয়ারির সুরে বলেন, প্রয়োজন পড়লে ভারত প্রত্যুত্তর দিতেও পিছপা হবে না।