'আমি ধর্মপ্রাণ হিন্দু, ঈদ পালনের প্রশ্নই ওঠে না'

ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনে বড় জয় পাওয়ার জন্য এনডিএ জোটের প্রশংসা করেন যোগী। তিনি বলেন, যে ভাবে ত্রিপুরায় ২৫ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটিয়ে লাল পতাকাকে নীচে নামানো হয়েছে, এবার সেভাবেই সমাজবাদী পার্টির লাল টুপিও নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে উত্তরপ্রদেশ থেকে।

Updated: Mar 7, 2018, 03:38 PM IST
'আমি ধর্মপ্রাণ হিন্দু, ঈদ পালনের প্রশ্নই ওঠে না'

নিজস্ব প্রতিবেদন : ফের বিতর্কিত মন্তব্য করার অভিযোগ উঠল যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা কক্ষে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ''আমি একজন ধর্মপ্রাণ হিন্দু। তাই ঈদ পালন করার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। নিজের ধর্ম নিয়ে আমি যথেষ্ট গর্বিত।'' ইতিমধ্যেই তাঁর এই মন্তব্যকে হাতিয়ার করে প্রচারে নেমেছে বিরোধীরা।

আরও পড়ুন- লেনিন মূর্তি ভাঙায় ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রীও, কড়া ব্যবস্থার নির্দেশ রাজনাথের

বুধবার উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার অধিবেশনে দাঁড়িয়ে বিরোধী দল কংগ্রেস ও সমাজবাদী পার্টির বিরুদ্ধে একের পর এক আক্রমণ শানান মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি বলেন, ''আমি লোক দেখানোর জন্য কোনও কাজ করি না। নিজেকে হিন্দু বলে গর্বিত মনে করলেও, আমি পৈতে পরে গোঁড়ামি দেখাই না। আবার নিজের ধর্ম ছেড়ে অন্য ধর্মের প্রতিও অতিভক্তিও দেখাই না।'' রাজ্য বিধানসভায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রীর এ হেন মন্তব্য ভিনধর্মের মানুষের কাছে ভুল বার্তা যাবে বলে দাবি সমাজবাদী পার্টির নেতাদের।

ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনে বড় জয় পাওয়ার জন্য এনডিএ জোটের প্রশংসা করেন যোগী। তিনি বলেন, যে ভাবে ত্রিপুরায় ২৫ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটিয়ে লাল পতাকাকে নীচে নামানো হয়েছে, এবার সেভাবেই সমাজবাদী পার্টির লাল টুপিও নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে উত্তরপ্রদেশ থেকে।

আরও পড়ুন- দিনরাত নীল ছবি দেখার শাস্তি, ছেলের হাত কেটে নিল বাবা

উল্লেখ্য ২ মার্চ হোলি উত্সবকে মাথায় রেখে শুক্রবার দুপুরের নমাজ অনুষ্ঠানের সময় ৩০ মিনিট পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন ইমাম-ই-ঈদগাহর মৌলানা খালিদ রশিদ ফিরিঙ্গি মাহলি। তাঁর এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানালেও, সে দিন যোগী আদিত্যনাথ বলেছিলেন, মুসলমানদের নমাজ প্রত্যেকদিনই হয়। কিন্তু হোলি বছরে একদিন আসে। তাই তাকে সম্মান জানানো উচিত প্রত্যেকের। তাঁর এই মন্তব্যকে ঘিরে বিতর্ক ছড়ায়।