উত্তরাখণ্ডে খারাপ হচ্ছে রাজনৈতিক আবহাওয়া

Last Updated: Tuesday, June 25, 2013 - 12:53

উত্তরাখণ্ডের বন্যা পরিস্থিতির অবনতির সঙ্গে সঙ্গে রাজনীতির অবনতির পরিচয়টাও মিলতে শুরু করল। মঙ্গলবার কংগ্রেস সহ সভাপতি রাহুল গান্ধীকে বিপর্যস্ত এলাকায়  যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য সরকার। যদিও মোদীর উত্তরাখণ্ড সফরের সময় তাঁকে বিপর্যস্ত এলাকায় যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি। গুজরাত মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষেত্রে যুক্তি দেওয়া হয়, ভিআইপিরা বিপর্যস্ত এলাকায় গেলে উদ্ধারকাজ ব্যহত হবে। তবে রাহুল গান্ধীর ক্ষেত্রে সে নিয়ম খাটবে না কেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।
ত্রাণ আর উদ্ধারকাজ নিয়ে রাজনৈতিক চাপান উতোর শুরু হয়েছিল আগেই। এ দিন নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে তোপ দাগে বিজেপির অন্যতম সহযোগী শিবসেনা। উত্তরাখণ্ডে বন্যা দুর্গতদের মধ্যে বেছে বেছে মোদী নাকি শুধু ১৫,০০০ গুজরাতিকেই উদ্ধার করেছেন বলে অভিযোগ এনেছে শিবসেনা।
উত্তরাখণ্ডে রীতিমত ঢাকঢোল পিটিয়ে উদ্ধারকার্যে নেমেছে টিম মোদী। `খাজনার চেয়ে বাজনা বেশি`-এর দায়ে এর আগেই রাজনৈতিক মহলে অভিযুক্ত হয়েছিলেন বিজেপির নির্বাচনী প্রচারের মুখ। এবার উদ্ধারকার্যেও তাঁর বিরুদ্ধে সরাসরি প্রাদেশিকতার অভিযোগ আনল দল সহযোগী শিবসেনাই।
নিজেদের মুখপত্র `সামনা`-এর সম্পাদকীয়তে মোদীর তীব্র সমালোচনা করা হয়েছে শিবসেনার পক্ষ থেকে। যখন এনডিএ-এর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীত্বের দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন মোদী, তখন তাঁর এই `প্রাদেশিক উদ্ধারকার্য` যে মোদীর দিকে বুমেরাং হয়ে ফিরে আসতে পারে সেই ইঙ্গিতও রয়েছে এই সম্পাদকীয়তে।
এর আগে কংগ্রেসও মোদীর সমালোচনা করে বলেছে এত সমারোহ করে মোদীর উত্তরাখণ্ডে উদ্ধারকার্যের দল পাঠানো আসলে রাজনৈতিক ফায়দা লোটার চেষ্টা।



First Published: Tuesday, June 25, 2013 - 19:45


comments powered by Disqus