শূন্যপদ ৬০০০, পরীক্ষার্থী ২৫ লাখ; চ্যালেঞ্জের মুখে নবান্ন!

মাত্র ছ' হাজার শূন্য পদ। চাকরিপ্রার্থী প্রায় পঁচিশ লক্ষ। আগামিকাল রাজ্য সরকারের গ্রুপ ডি পদে পরীক্ষা ঘিরে রীতিমতো তুলকালাম কাণ্ড। নবান্নর সামনে চ্যালেঞ্জ, পরীক্ষা নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করানোর। পরীক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সুবিধা ঘোষণা রেল ও মেট্রো কর্তৃপক্ষের।  

Updated: May 19, 2017, 08:28 PM IST
শূন্যপদ ৬০০০, পরীক্ষার্থী ২৫ লাখ; চ্যালেঞ্জের মুখে নবান্ন!

ওয়েব ডেস্ক : মাত্র ছ' হাজার শূন্য পদ। চাকরিপ্রার্থী প্রায় পঁচিশ লক্ষ। আগামিকাল রাজ্য সরকারের গ্রুপ ডি পদে পরীক্ষা ঘিরে রীতিমতো তুলকালাম কাণ্ড। নবান্নর সামনে চ্যালেঞ্জ, পরীক্ষা নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করানোর। পরীক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সুবিধা ঘোষণা রেল ও মেট্রো কর্তৃপক্ষের।  

সরকারি চাকরির সুযোগ। কেই বা হাতছাড়া করে? শূন্যপদের সঙ্গে চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যার ফারাক তাই আকাশ-পাতাল। ২০ মে বেলা আড়াইটা থেকে বিকেল পৌনে চারটে পর্যন্ত পরীক্ষা চলবে। বিপুল সংখ্যক পরীক্ষার্থী, সঙ্গে তাঁদের বাড়ির লোকজন রাস্তায় নামবেন। পরীক্ষার্থীদের নির্বিঘ্নে সময়মতো হলে পৌছে দিতে পথে বাড়তি ব্যবস্থা রাখছে প্রশাসন। অতিরিক্ত বাস, ট্রাম, ফেরি রাস্তায় থাকছে। পরীক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য মেট্রো চলবে ৩০০টি, যেখানে অন্যান্য শনিবার মেট্রো চলে ২০০টি।

পূর্ব রেলের তরফে ৬টি অতিরিক্ত ট্রেন ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে বারাসত-শিয়ালদহ, নৈহাটি-শিয়ালদহ, নৈহাটি-রানাঘাট, সোনারপুর-লক্ষ্মীকান্তপুর এবং লক্ষ্মীকান্তপুর-শিয়ালদহ রুটের ট্রেন। পরীক্ষার জন্য সব ট্রেন সব স্টেশনে দাঁড়াবে বলে ঘোষণা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। শনিবার শিয়ালদহ-রানাঘাট শাখায় যে ট্রেনগুলি বন্ধ থাকে, সেগুলিও চলবে পরীক্ষার জন্য।

টেট পরীক্ষায় যে সব জেলার যে কেন্দ্রে  গণটোকাটুকি ও গণ্ডগোল হয়, সেই পরীক্ষাকেন্দ্রের সামনে ১৪৪ ধারা জারি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সব জেলাশাসকদের কাছে এই নির্দেশ পৌছে গিয়েছে নবান্নের তরফে। শনিবার পরীক্ষা। তবে তার জন্য শুক্রবার থেকেই ভিড় উপচে পড়তে থাকে হাওড়া-শিয়ালদহ স্টেশনে। উঠেছে দুর্ভোগের অভিযোগ।

আরও পড়ুন, 'অস্বাস্থ্যকর' রিফাইন তেলেই চলছে রান্না, হতে পারে মারাত্মক অসুখ!