এনসেফ্যালাইটিসের প্রকোপ উত্তরবঙ্গের চা বাগান জুড়ে, মারণ জ্বর প্রতিরোধে প্রশাসনের গাফিলতির অভিযোগ এনসেফ্যালাইটিসের প্রকোপ উত্তরবঙ্গের চা বাগান জুড়ে, মারণ জ্বর প্রতিরোধে প্রশাসনের গাফিলতির অভিযোগ

মারণ জ্বর প্রতিরোধে প্রশাসনের ভূমিকা ইতিবাচক বলে দাবি করা হলেও চব্বিশ ঘণ্টার ক্যামেরায় ভিন্ন ছবি। উত্তরবঙ্গের চা বাগানের শ্রমিক পরিবারে সর্বত্র দুর্দশার চিত্র। ছোট ছোট শিশুরা জ্বরে আক্রান্ত। অপুষ্টির কারণেও মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে তারা। আসে না মেডিক্যাল টিম। মেলে না চিকিত্সা পরিষেবা। স্বাস্থ্য বিভাগের গাফিলতির অভিযোগ ঝুড়ি ঝুড়ি। চব্বিশ ঘণ্টার এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট।শহরের তুলনায় গ্রামাঞ্চলে এনসেফ্যালাইটিসের প্রকোপ বেশি। রোজ বাড়ছে মৃত্যু। পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। বিশেষ করে চা বাগান বস্তিতে ভয়াবহ আকার নিয়েছে। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত শিশুরা। চিকিত্সা পরিষেবায় চরম গাফিলতির অভিযোগ। প্রশাসনের নজর নেই। শিলিগুড়ি লাগোয়া চা বাগানের প্রত্যেক শ্রমিক পরিবারে জ্বরে আক্রান্ত শিশুরা।

উত্তরবঙ্গে বেড়েই চলেছে এনসেফেলাইটিসের প্রকোপ উত্তরবঙ্গে বেড়েই চলেছে এনসেফেলাইটিসের প্রকোপ

উত্তরবঙ্গজুড়ে বেড়েই চলেছে এনসেফ্যালাইটিসের প্রকোপ। এই রোগে মৃতের সংখ্যা যেমন বাড়ছে, তেমনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এঅবস্থায় উপযুক্ত পরকাঠামো না মেলায় শুক্রবার রাতে ধুপগুড়ি গ্রামীন হাসপাতালে বিক্ষোভ দেখান রোগীরা। এরপরই কার্যত বিরক্ত হয়ে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি চান হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার মধুসূদন সাউ। তাঁর অভিযোগ, রোগীর তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন।চিকিতসার উপযুক্ত পরিকাঠামোই নেই। তাই দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি চান ধূপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালের মেডিক্যাল সুপার মধুসূদন সাউ। শুক্রবার  রোগীর আত্মীয়দের বিক্ষোভের মুখে পড়ে এমনই জানান তিনি।