কাঠগোড়ায় নির্বাচন কমিশন, সমালোচনার মুখে সুধীর কুমার রাকেশ

তৃতীয় দফা ভোটের পর কাঠগড়ায় নির্বাচন কমিশন। সমালোচনার মুখে বিশেষ নির্বাচনী পর্যবেক্ষক সুধীরকুমার রাকেশ। বিরোধীদের অভিযোগ, তিরিশে এপ্রিল ভোটে ব্যাপক কারচুপি হলেও ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয়েছে কমিশন। সুধীরকুমার রাকেশের অপসারণ দাবি করেছে তারা। এই অবস্থায় বাকি দু-দফা ভোট অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করাই নির্বাচনের কমিশনের কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। ভোটারদের মারধর। অবাধে ছাপ্পা ভোট। নেই কেন্দ্রীয় বাহিনী। বুধবার তৃতীয় দফার নির্বাচনে দিনভর এই ছবি ধরা পড়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরায়। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে নির্বাচন কমিশন ব্যর্থ বলে অভিযোগ করেন বিরোধীরা। গোটা ঘটনায় এখন কাঠগড়ায় রাজ্যের বিশেষ নির্বাচনী পর্যবেক্ষক সুধীর কুমার রাকেশ।

লোকসভা নির্বাচন: প্রশাসনিক রদবদলের পরেও রাজ্যে তৃতীয় দফায় শান্তিপূর্ণ ভোট করাতে ব্যর্থ নির্বাচন কমিশন

ব্যাপক প্রশাসনিক রদবদলের পরেও তৃতীয় দফায় অবাধ ও শান্তিপূর্ণ ভোট করাতে ব্যর্থ হল নির্বাচন কমিশন। হুগলি, বর্ধমান, বীরভূম কিংবা হাওড়া। চার জেলার নটি কেন্দ্র থেকেই এল ব্যাপক সন্ত্রাসের খবর। কোথাও বুথ থেকে মেরে বের করে দেওয়া হল বিরোধী এজেন্টদের। কোথাও ভোট দিতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন সাধারণ মানুষ। সর্বত্রই বেপরোয়া বুথ দখল, রিগিং, ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ। লিলুয়া, শালিমার, আমতা, জগতবল্লভপুর, সাঁকরাইল, পাঁচলা---হাওড়া লোকসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন জায়গায় বুথ দখল, বিরোধী এজেন্টকে মারধর, তাঁদের বুথে বসতে না দেওয়া এরকম হাজারো অভিযোগ। বাম-কংগ্রেস-বিজেপি-সবারই টার্গেট তৃণমূল।

ধর্ষণ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, দেবকে শোকজ নোটিস পাঠাল নির্বাচন কমিশন, শোকজ সৌগতকেও

বিতর্কিত মন্তব্যের প্রেক্ষিতে তৃণমূলের দুই প্রার্থী সৌগত রায় এবং দেবকে শোকজ নোটিস পাঠাল নির্বাচন কমিশন। এক সাক্ষাত্কারে ধর্ষণ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন ঘাটালের তৃণমূল প্রার্থী অভিনেতা দেব। তাঁর মন্তব্য নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে যায়। এরপরই পেপার কাটিং চেয়ে পাঠায় নির্বাচন কমিশন। এদিকে বরানগরে দলের কর্মিসভায় রিগিং নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন দমদমের তৃণমূল প্রার্থী সৌগত রায়। কমিশনে অভিয়োগ জানান বিরোধীরা। কর্মিসভার ভিডিও ফুটেজ চেয়ে পাঠায় কমিশন। এরপর আজই নোটিস পাঠালো কমিশন।