দিন বদলের আর্জি, কাল শুনানি সুপ্রিম কোর্টে

রমজান মাসে পঞ্চায়েত ভোটে আপত্তি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করল রাজ্য সরকার। শীর্ষ আদালত রাজ্যকে রিভিউ পিটিশন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছে। রিভিউ পিটিশনের প্রক্রিয়া দীর্ঘ। তাই খুব তাড়াতাড়ি এই সমস্যার সমাধান হবে বলে মনে করছে না কোনও পক্ষই।

ভোটের ভবিষ্যৎ কোথায়?

পাঁচ দফা নয়, বাহিনী সমস্যা মেটাতে পঞ্চায়েত ভোটকে চার দফায় করতে রাজি রাজ্য সরকার। প্রথম দফায় দোসরা জুলাই, জঙ্গলমহলের তিন জেলায় ভোট করানোর প্রস্তাব দিয়েছেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল। চৌঠা জুলাই, দুই চব্বিশ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, বর্ধমান ও পূর্ব মেদিনীপুরে ভোট করার প্রস্তাব দিয়েছে রাজ্য সরকার। ছয়ই জুলাই নদিয়া, মালদহ, মুর্শিদাবাদ ও বীরভূমে ভোট করার প্রস্তাব সরকারের।

হুমকি তৃণমূল নেতার

পঞ্চায়েত ভোট শেষ না হওয়া পর্যন্ত সিপিআইএম যেখানেই সভা করবে, সেখানে হামলা চালাবে তৃণমূল। সিপিআইএম নেতাকর্মীদের গাছে বেঁধে পেটানো হবে। বর্ধমানের প্রকাশ্য সভায় হুমকি দিলেন তৃণমূল নেতা সজল পাঁজা। মন্তেশ্বর বাজারে দাঁড়িয়ে সজল পাঁজার  হুমকি, এবার থেকে সিপিআইএম কর্মীরা যেন দেখেশুনে পথ চলেন। কারণ রাস্তায় তাঁদের পিঠে লাঠি ভাঙতে পারে তৃণমূল কর্মীরা।  

পর্যবেক্ষকদের জন্য নির্দেশিকা জারি কমিশনের

নিরাপত্তারক্ষী নিয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে টানাপোড়েনের মাঝেই পর্যবেক্ষকদের জন্য একগুচ্ছ নির্দেশিকা জারি করল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। তাত্পর্যপূর্ণ ভাবে মনোময়নপত্র জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরুর আগেই পর্যবেক্ষকদের জেলায় জেলায় পৌঁছে যেতে বলা হয়েছে। হাইকোর্টের নির্দেশ মেনে প্রতিটি বুথে নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকছে কিনা, সে দিকে পর্যবেক্ষকদের নজর রাখতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গ পঞ্চায়েত ভোট, আদালতে যেতে পারে কমিশন

পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে সরকারের সঙ্গে সংঘাতের জেরে আদালতের দ্বারস্থ হতে পারে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে সোমবার বৈঠকে বসবে কমিশন। রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সরকারের সঙ্ঘাত তুঙ্গে। সরকার একতরফা ভাবে পঞ্চায়েত ভোটের দিন ঘোষণা করে দেওয়ায় আদালতের দ্বারস্থ হতে পারে নির্বাচন কমিশন।

`সততা` বিতর্কে যুযুধান দুই পক্ষ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সত্‍, একথা তিনি মানেন না। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের বিরোধিতায় এবার পাল্টা আক্রমণে নামলেন তৃণমূল নেতারা। মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর সততা নিয়ে গোটা দেশে কোনও প্রশ্ন নেই। অথচ মানুষ নির্বাচনে যাকে প্রত্যাখ্যান করেছেন, সেই বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য এসব প্রশ্ন তুলছেন। সেই কারণে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর মানসিক ভারসাম্য নিয়েই প্রশ্ন তুললেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী।

রাজ্যসরকারের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধের ডাক বুদ্ধদেবের

পঞ্চয়েত নির্বাচনে মানুষের রায় বানচাল করার চেষ্টা চালাবে রাজ্য সরকার এবং শাসক দল। শনিবার দমদমে দলের এক কর্মিসভায় একথা বলেন সিপিআইএম নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। পঞ্চায়েতের লড়াইয়ে দুলীয় কর্মীদের এক ইঞ্চি জমিও না ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। ডিসেম্বর মাসের শুরু থেকেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের লক্ষ্যে সর্বাত্মকভাবে  নেমে পড়ার পরিকল্পনা করেছে সিপিআইএম। 

পঞ্চায়েতের আগে ঐক্যের ডাক বাম নেতাদের

এর আগে ২০০৮-এ শরিকি ঐক্য না হওযার কারণে পঞ্চায়েতে খারাপ ফলাফল হয় বামেদের। সেইকারণেই এবার আগেভাগেই পঞ্চায়েত ভোটের জন্য ঐক্য নিশ্চিত করার কাজ শুরু করে দিলেন বাম নেতারা। বৃহস্পতিবার আলিমুদ্দিন স্ট্রিটে বামফ্রন্টের বৈঠক বসে। সিদ্ধান্ত হয়েছে, একেবারে গ্রাম স্তর থেকে বামঐক্য নিশ্চিত করতে সব রকমের পদক্ষেপ নেওয়া হবে।