বলিউডে যৌন হেনস্থা, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আমির খানের

কিরণের সঙ্গে যৌথ বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন আমির খান

Updated: Oct 11, 2018, 11:18 AM IST
বলিউডে যৌন হেনস্থা, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আমির খানের

নিজস্ব প্রতিবেদন : ‘মি টু’ ঝড়ে বেসামাল গোটা বলিউড। কখনও অলোকনাথের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থা এবং ধর্ষণের অভিযোগ উঠছে, আবার কখনও হেনস্থার অভিযোগ উঠছে নানা পাঠেকরের বিরুদ্ধে। আবার কখনও ‘কুইন’-এর পরিচালক বিকাশ বহেলের বিরুদ্ধে উঠছে যৌন হেনস্থার খবর। সবকিছু মিলিয়ে ‘মি টু’-র জেরে এখন মান বাঁচাতে ব্যস্ত বি টাউনের একাংশ। এসবের মধ্যেই এবার আমির খান কি করলেন জানেন?

আরও পড়ুন : বিদেশে জনপ্রিয় পরিচালকের হাত থেকে কীভাবে রেহাই পেয়েছিলেন? মুখ খুললেন টিস্কা

বলিউডের যে সমস্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে, তাঁদের সঙ্গে কোনও কাজ করবেন না বলিউডের ‘মিস্টার পারফেকশনিস্ট’। আমির খান এবং কিরণ রাও সম্প্রতি যৌথ বিবৃতি দিয়ে সম্প্রতি তাঁদের সেই সিদ্ধান্তের কথা জনিয়েছেন। যার জেরে ইতিমধ্যেই পরিচালক সুভাষ কাপুরের কপালে ভাঁজ পড়তে শুরু করেছে।

আরও পড়ুন : 'মি টু' ঝড়, যৌন হেনস্থা নিয়ে মুখ খুললেন ঐশ্বর্য

গুলশন কুমারের বায়পিক অবলম্বনে সম্প্রতি ‘মগুল’ পরিচালনা করার কথা ছিল সুভাষ কাপুরের। যার প্রযোজনায় ছিলেন খোদ আমির খান। কিন্তু, অভিনেত্রী গীতিকা ত্যাগি যেভাবে সুভাষ কাপুরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ করেছেন, তার জেরেই এবার পিছিয়ে এলেন আমির।

জানা যাচ্ছে, ২০১৪ সালে গীতিকা ত্যাগি  নামে এক অভিনেত্রী সুভাষ কাপুরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ দায়ের করেন। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে সুভাষ কাপুর আপাতত জামিনে মুক্ত রয়েছেন। কিন্তু, গীতিকা ত্যাগি যেভাবে বলিউডের এই পরিচালকের বিরুদ্ধে হেনস্থা নিয়ে সরব হয়েছেন, তার জেরেই আমির খান এবার সুভাষ কাপুরের সঙ্গ ত্যাগ করলেন বলেই জানা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন : সলমনের সিনেমার শুটিংয়ের সময় অশ্লীলতা অলোকনাথের, বিস্ফোরক মহিলা

এ বিষয়ে সুভাষ কাপুরকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, আমির খান এবং কিরণ রাও যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তাকে শ্রদ্ধা করেন তিনি। যেহেতু তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ আপাতত বিচারাধীন, তাই আইনিভাবে সমস্ত বিষয়টিকে সামাল দেওয়া হবে বলেও জানান এই পরিচালক। পাশাপাশি আদালতেই তিনি নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করবেন বলেও জানিয়েছেন সুভাষ কাপুর।

 

প্রসঙ্গত ২০১২ সালে গীতিকা ত্যাগি অভিযোগ করেন, সুভাষ কাপুর তাঁকে যৌন হেনস্থা করেছেন। পরিচালক তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টাও চালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন গীতিকা। সেই অনুযায়ী ২০১৪ সালে সুভাষ কাপুরের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন গীতিকা ত্যাগি।

এদিকে আমিরের পাশাপাশি ঐশ্বর্য রাই বচ্চনও গর্জে উঠেছেন হেনস্থাকারীদের বিরুদ্ধে। তিনি বলেন, বর্তমানে মহিলারা যেভাবে যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন, তাকে কুর্ণিশ জানাচ্ছেন তিনি। আপনি বিশ্বের যে কোনও প্রান্তেই থাকুন না কেন, যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে আপনার অভিযোগ সংবাদমাধ্যম এখন গুরুত্ব দিয়ে শুনতে শুরু করেছে। এবং সবার সামনে তা প্রকাশিত হচ্ছে। এটা অত্যন্ত ভাল পদক্ষেপ বলেও মনে করেন প্রাক্তন বিশ্বসুন্দরী।

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. You can find out more by clicking this link

Close