আল আমিন কলেজের গেটে ঝুলল সাসপেনশন অর্ডার

নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিল বেনিয়াপুকুরের মিল্লি আল আমিন কলেজে। সাসপেন্ড হওয়া শিক্ষিকাদের আজ কলেজে ঢুকতে বাধা দেয় বেশ কয়েকজন বহিরাগত। আজ কলেজে নিজেদের জিনিসপত্র নিতে গিয়েছিলেন সাসপেন্ড হওয়া অধ্যাপিকারা। অভিযোগ, কলেজের গেটেই তাদের বাধা দেয় কয়েকজন বহিরাগত। পুলিসের সামনেই তাঁদের ধাক্কা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এদিকে, সাসপেন্ড হওয়া শিক্ষিকাদের বিরুদ্ধে কলেজের গেটেই সাসপেনশন অর্ডার ঝুলিয়ে দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

Updated: Feb 4, 2013, 02:14 PM IST

নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিল বেনিয়াপুকুরের মিল্লি আল আমিন কলেজে। সাসপেন্ড হওয়া শিক্ষিকাদের আজ কলেজে ঢুকতে বাধা দেয় বেশ কয়েকজন বহিরাগত। আজ কলেজে নিজেদের জিনিসপত্র নিতে গিয়েছিলেন সাসপেন্ড হওয়া অধ্যাপিকারা। অভিযোগ, কলেজের গেটেই তাদের বাধা দেয় কয়েকজন বহিরাগত। পুলিসের সামনেই তাঁদের ধাক্কা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।
এদিকে, সাসপেন্ড হওয়া শিক্ষিকাদের বিরুদ্ধে কলেজের গেটেই সাসপেনশন অর্ডার ঝুলিয়ে দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।
সাসপেন্ড হওয়া অধ্যাপিকাদের অভিযোগ, সামাজিকভাবে সম্মানহানি করতেই এভাবে কলেজের গেটে সাসপেনশন অর্ডার ঝোলানো হয়েছে। শিক্ষিকাদের দাবি, সাসপেনশনের সিদ্ধান্ত হওয়ার পরে, সময় থাকলেও, তাঁদের কাছে এবিষয়ে কোনও নির্দেশ পাঠায়নি কলেজ কর্তৃপক্ষ। এদিকে, একই অভিযোগে কেন দুধরনের শাস্তি সেবিষয়েও প্রতিবাদ জানিয়ে আজ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে দেখা করবেন সাসপেন্ড হওয়া অধ্যাপিকারা।