বিস্ফোরক বই প্রকাশ প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়কের

Last Updated: Friday, May 18, 2012 - 19:07

প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক এবং প্রাক্তন আইএএস অফিসার দীপক ঘোষের লেখা এই বই ঘিরে তোলপাড় শুরু হল রাজনৈতিক মহলে। শুক্রবার কলকাতা প্রেস ক্লাবে "মমতা ব্যানার্জি এজ আই হ্যাভ নোন হার" নামে বইটির আনুষ্ঠানিক প্রকাশ করেন তিনি। এই বইয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, তাঁর পরিবার এবং তৃণমূল কংগ্রেস সম্পর্কে একাধিক অভিযোগ তুলে ধরেছেন দীপক ঘোষ।
মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি থেকে তৃণমূল কংগ্রেস এবং মুখ্যমন্ত্রীর পরিবার। একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে লেখা বই "মমতা ব্যানার্জি এজ আই হ্যাভ নোন হার"। লেখক তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন বিধায়ক দীপক ঘোষ। তার ওপর প্রাক্তন আইএএস অফিসারও তিনি। মমতা ব্যানার্জি, তৃণমূল কংগ্রেস এবং মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠিও দিয়েছেন দীপক ঘোষ। প্রতিলিপি পাঠিয়েছেন সোনিয়া গান্ধী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী এবং মুখ্য নির্বাচনী অফিসারকে। চিঠির সঙ্গে সদ্য প্রকাশিত বইয়ের প্রতিলিপিও পাঠিয়েছেন প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক। চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রীর পরিবার, পারিষদ এবং তৃণমূলের একাধিক গরমিলের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি। 
কী রয়েছে দীপক ঘোষের লেখা বইতে। মোট ২১টি বিষয় রয়েছে "মমতা ব্যানার্জি এজ আই হ্যাভ নোন হার" বইটিতে। অল ইন্ডিয়া তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারপার্সন মমতা ব্যানার্জি। কিন্তু দীপক ঘোষের অভিযোগ, পার্টি সংবিধান অনুযায়ী এটি সম্পূর্ণ অবৈধ। ২০০৬ সালে সিঙ্গুরে ন্যানো কারখানার বিরোধিতা করে দীর্ঘদিন অনশন করেছিলেন মমতা ব্যানার্জি। প্রাক্তন তৃণমূল নেতা অভিযোগ এনেছেন নৈশভোজে স্যান্ডউইচ এবং দিনভর চকোলেট সহযোগে অনশনের। মমতা ব্যানার্জির নবরত্ন সভার তদন্ত হওয়া প্রয়োজন বলেই মনে করেন দীপক ঘোষ। গ্রাসরুট ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট একটি জনকল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান। ২০০২ সালে তৃণমূলের নেতারা প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলেন। দীপক ঘোষের অভিযোগ জনকল্যাণের বদলে আসলে মমতা ব্যানার্জি-সহ অন্য তৃণমূল নেতাদের স্বার্থ চরিতার্থ করে ওই প্রতিষ্ঠান। দার্জিলিং থেকে গোর্খাল্যান্ড, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা ব্যানার্জির পদক্ষেপকে তাঁর অন্যতম ভুলের একটি বলেই অভিযোগ করেছেন দীপক ঘোষ। তাঁর যুক্তি পাহাড়ে অশান্তি থামেনি। বরং ক্রমেই সিঁদুরে হচ্ছে পাহাড়ের আকাশ। প্রাক্তন তৃণমূল নেতা দীপক ঘোষের বইটিতে 'বিস্ফোরক' তথ্য রয়েছে বলে বক্তব্য রাখেন শিক্ষাবিদ সুনন্দ সান্যাল।
শুক্রবার কলকাতা প্রেসক্লাবে দীপক ঘোষের এই বইপ্রকাশ ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। কার্যত কোনও বক্তব্যই রাখতে পারেননি সুনন্দ সান্যাল।



First Published: Saturday, May 19, 2012 - 16:13
comments powered by Disqus