বাড়ি আরশোলা-মুক্ত করার এই অব্যর্থ উপায়গুলি জানেন তো!

বাজার চলতি একাধিক রাসায়নিক যুক্ত দামি স্প্রে ব্যবহার করেও বাড়ি থেকে আরশোলার উপদ্রব বন্ধ করা যায় না।

Updated: Sep 12, 2018, 07:29 PM IST
বাড়ি আরশোলা-মুক্ত করার এই অব্যর্থ উপায়গুলি জানেন তো!

নিজস্ব প্রতিবেদন: মহিলারা হয়তো বন্দুক দেখলেও ততটা ভয় পান না, যতটা ভয় তাঁরা একটা আরশোলা দেখলে পেয়ে থাকেন! এই আরশোলাকে আপাত ভাবে নিরীহ ধরণের পোকা মনে হলেও এটি কিন্তু অনেক বেশিই ক্ষতিকর। কারণ, আরশোলা ময়লা আবর্জনা থেকে উঠে আপনার সারা ঘরময় ঘুরে বেড়ায়, খাবার-দাবারের উপর হেঁটে বেড়ায়। এর ফলে আরশোলা গায়ে থাকা জীবাণু আমাদের খাবারের সংস্পর্শে আসে। আর এই ভাবেই আরশোলা নানা রোগ-জীবানু বহন করে বেড়ায়। নানা রোগের উৎপত্তি এই আরশোলার থেকেই হয়ে থাকে। তাই ঘর-বাড়ি থেকে আরশোলা দূর করা অত্যন্ত জরুরী। বাজার চলতি একাধিক রাসায়নিক যুক্ত দামি স্প্রে ব্যবহার করেও বাড়ি থেকে আরশোলার উপদ্রব বন্ধ করা যায় না। তাহলে কী করে আরশোলা-মুক্ত করবেন? বাড়ি আসুন জেনে নেওয়া যাক বাড়ি আরশোলা-মুক্ত করার অব্যর্থ কিছু উপায়।

আরও পড়ুন: ক্ষতিকারক ধূপ বা স্প্রে নয়, মশা তাড়ান ঘরোয়া উপায়ে

১) বোরিক পাউডারের ব্যবহার: বোরিক পাউডার মূলত একধরণের অ্যাসিডিক উপাদান যা পোকামাকড়ের যন্ত্রণা কমাতে বিশেষভাবে সহায়ক। তবে আরশোলার উপদ্রব বন্ধ করার ক্ষেত্রেও এর ব্যবহার করা চলে। ১ টেবিল চামচ বোরিক পাউডার, ১ টেবিল চামচ কোকো পাউডার আর ২ টেবিল চামচ ময়দা বা আটা এক সঙ্গে ভাল করে মিশিয়ে নিন। এ বার এই মিশ্রণটি বাড়ির সব কোনায় কোনায় ছিটিয়ে রাখুন। আরশোলা এই মিশ্রণে আকৃষ্ট হয়ে বোরিক পাউডার খেয়ে মারা পড়বে। অন্তত দু’ সপ্তাহ এই পদ্ধতিটি ব্যবহার করতে পারলে আরশোলার উপদ্রব থেকে একেবারে মুক্তি পাওয়া যাবে।

Cockroach

২) তেজপাতার ব্যবহার: আরশোলা তাড়ানোর সবচেয়ে সহজ ও সস্তা উপাদান হল তেজপাতা। তেজপাতার তীব্র গন্ধ আরশোলা একেবারেই সহ্য করতে পারে না। তেজপাতা গুঁড়ো করে বাড়ির সব কোনায় কোনায় ছিটিয়ে রাখুন। সপ্তাহে অন্তত দু’দিন এমন করতে পারলে আরশোলার উপদ্রব থেকে একেবারে মুক্তি পাওয়া যাবে।

৩) চিনি ও বেকিং সোডার ব্যবহার: বেকিং সোডা আরশোলা একেবারেই সহ্য করতে পারে না। সমপরিমাণ চিনি ও বেকিং সোডা একসঙ্গে মিশিয়ে বাড়ির সব কোনায় কোনায় ছিটিয়ে রাখুন। চিনির ঘ্রাণে আরশোলা আকৃষ্ট হয়ে বেকিং সোডা মিশ্রিত চিনি খেয়ে মারা পড়বে। অন্তত দু’ সপ্তাহ এই পদ্ধতিটি ব্যবহার করতে পারলে আরশোলার উপদ্রব থেকে একেবারে মুক্তি পাওয়া যাবে।

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. You can find out more by clicking this link

Close