সারদার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করুক কেন্দ্র, দাবি বামেদের

সারদা চিটফান্ড কাণ্ডে সংস্থার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করুক কেন্দ্র। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে এই আর্জি জানাল বাম প্রতিনিধি দল। বৃহস্পতিবার দিল্লিতে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, "সারদার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে আমনতকারীদের টাকা ফেরত দিতে হবে।" এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা কেন্দ্রে দায়িত্ব। তিনি আরও বলেন, "ক্ষুদ্র সঞ্চয় স্কিমে এজেন্টের কমিশন বাড়ালে উৎসাহ বাড়বে তাঁদের। এই দাবিই জানিয়েছি আমরা।"

Updated: May 9, 2013, 11:19 AM IST

সারদা চিটফান্ড কাণ্ডে সংস্থার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করুক কেন্দ্র। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে এই আর্জি জানাল বাম প্রতিনিধি দল। বৃহস্পতিবার দিল্লিতে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, "সারদার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে আমনতকারীদের টাকা ফেরত দিতে হবে।" এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা কেন্দ্রে দায়িত্ব। তিনি আরও বলেন, "ক্ষুদ্র সঞ্চয় স্কিমে এজেন্টের কমিশন বাড়ালে উৎসাহ বাড়বে তাঁদের। এই দাবিই জানিয়েছি আমরা।"
অন্যদিকে সাম্প্রতিক কালে রাজ্যের বৃহত্তম দুর্নীতির ঘটনার তদন্তে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে দিয়ে তদন্ত করাতে রাজ্য সরকার ভায় পাচ্ছে বলেও অভিযোগ সূর্যকান্তের। তিনি বলেন, "শাসক দলের বহু নেতা, কর্মী, সাংসদ এই প্রতারণার সঙ্গে যুক্ত। সে জন্যই সিবিআই তদন্তে ভয় পাচ্ছে রাজ্য সরকার। একই দাবি রেখেছেন অসীম দাসগুপ্তও। তিন সাংবাদিকদের জানান, "সারদার স্থাবর-অস্থাবর সমস্ত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে হবে সেবিকে।" কেন্দ্রের কাছে বামেদের আবেদন, ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পে সুদের হার বাড়াতে হবে। ক্ষুদ্র সঞ্চয়ে বিনিয়োগ করার জন্য সাধারণ মানুষকে সচেতন করার জন্য প্রচার চালাবে তাঁরা।
আজ বিরোধী দলনেতা সূর্যকান্ত মিশ্রের নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী এবং রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করেন বামফ্রন্টের এক প্রতিনিধি দল। দলে ছিলেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অসীম দাশগুপ্তও। রাজ্যের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী কাছে স্মারকলিপি জমা দেন তাঁরা।