আরও চাপে কোহলি, বিরাটের বিতর্কিত ভিডিও নিয়ে এবার তদন্ত করবে সিওএ

এবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে সুপ্রিম কোর্ট নিয়োযিত কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স ঢুকে পড়ল বিরাটের এই ইস্যুতে। 

Suman Majumder | Updated: Nov 9, 2018, 03:35 PM IST
আরও চাপে কোহলি, বিরাটের বিতর্কিত ভিডিও নিয়ে এবার তদন্ত করবে সিওএ

নিজস্ব প্রতিনিধি : একটা ভিডিও-র জন্য বেজায় সমস্যায় পড়েছেন বিরাট কোহলি। চারপাশের চাপ যেভাবে বাড়ছে তাতে আরও যেন কোণঠাঁসা হয়ে পড়ছেন ভারতীয় অধিনায়ক। জন্মদিনে অ্যাপ লঞ্চ করেছিলেন বিরাট। উদ্দেশ্য ছিল, ভক্তদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন। শুরুতে সব ঠিকঠাকই চলছিল। এক ভক্তের সমালোচনামূলক টুইট ঘিরে যাবতীয় সমস্যার সত্রপাত। সেই ভক্তকে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে আক্রমণ করে বসেন বিরাট। সেই ভক্তের টুইটে লেখা ছিল, ''বিরাট কোহলি ওভাররেটেড ব্যাটসম্যান। ওর ব্যাটিংয়ে আমি কিছু স্পেশাল দেখতে পাই না। ভারতীয়দের থেকে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং দেখতে আমি বেশি পছন্দ করি।'' এর পরই সেই ক্রিকেটপ্রেমীর উপর ঝাঁপিয়ে পড়েন টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন। বলেন, ''আমার মনে হয় আপনার অন্য কোনও দেশে গিয়ে থাকা উচিত। আপনি এই দেশে বসবাস করবেন আর অন্য দেশকে ভালবাসবেন! আপনি আমাকে পছন্দ না-ই করতে পারেন। তাতে আমার বিন্দুমাত্র আপত্তি নেই। কিন্তু আমার মনে হয় আপনার এই দেশ থেকে বেরিয়ে অন্য কোথাও গিয়ে থাকা উচিত। আপনি সবার আগে নিজের অগ্রাধিকার ঠিক করুন। 

আরও পড়ুন-  ভারত সুযোগই দিল না, আমেরিকার অধিনায়ক হয়ে আক্ষেপ সৌরভের

সেই ভিডিওতে কোহলি আচমকাই সেই সমর্থককে দেশ ছাড়ার নির্দেশ দিয়ে বসেন। এর পর থেকেই শুরু হয় বিরাটের সমালোচনা। সমাজের বিভিন্ন স্তর থেকে বিরাটের জন্য একের পর এক সমালোচনার তির উড়ে আসতে থাকে। যদিও বিজেপি নেতা সুব্রমনিয়াম স্বামী ও প্রাক্তন ক্রিকেটার মহম্মদ কাইফের মতো কেউ কেউ বিরাটের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাঁরা বলছেন, বিরাটের উপর অযথা আক্রমণ করা হচ্ছে। আর এবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে সুপ্রিম কোর্ট নিয়োযিত কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স ঢুকে পড়ল বিরাটের এই ইস্যুতে। বিরাটের সেই বিতর্কিত ভিডিও নিয়ে এবার তদন্ত শুরু করার কথা ভাবছে সিওএ। যদিও এর আগেই বিসিসিআইয়ের তরফে এক কর্তা জানিয়েছেন, বিরাট ব্যক্তিগত মঞ্চ থেকে এমন ভিডিও করেছেন। বোর্ডের মঞ্চ থেকে এমনটা করলে তাঁর বিরুদ্ধে হয়তো পদক্ষেপ নেওয়া হত।

আরও পড়ুন-  ‘অন্যায়ভাবে কোহলিকে আক্রমণ করা হচ্ছে’, ‘দেশ ত্যাগ’ মন্তব্যে বিরাটের পাশেই কাইফ

এরই মাঝে বিরাট কিন্তু ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমেছেন। তিনি টুইটারে লিখেছেন, ''আমার জন্য এই ট্রোলিং নয় বলেই মনে করি। আমি 'এই ধরনের ভারতীয়' মন্তব্যটি নিয়েই বলেছি। পছন্দের স্বাধীনতার পক্ষে আমি। এটা হালকাভাবেই নাও বন্ধুরা। উত্সবের মরসুমে আনন্দ করো। সবাইকে প্রীতি ও শুভেচ্ছা।'