দিওয়ালির রাতে ব্যাগ থেকে বার করলেন তুবড়ি, তারপরই সব শেষ!

অনির্বাণ ঘোষ  কোচবিহারের পাটাকুড়া এলাকার বাসিন্দা।

Updated: Nov 8, 2018, 01:08 PM IST
দিওয়ালির রাতে ব্যাগ থেকে বার করলেন তুবড়ি, তারপরই সব শেষ!

নিজস্ব প্রতিবেদন:   শব্দবাজি ফাটানো নিষেধ। কিন্তু তা বলে কি আর আলোর উত্সবে বাজি ফাটাবেন না! দিওয়ালির রাতে নিজের দোকান বন্ধ করার পর  সেখানেই তুবড়ি ফাটানোর চেষ্টা করেছিলেন তিনি।  কিন্তু বাজির ব্যাগ থেকে তুবড়ি বার করতেই সব শেষ! তুবড়ি ফেটে মৃত্যু হয় যুবকের। ঘটনাটি ঘটেছে কোচবিহারের সুনীতি রোড এলাকায়।  

আরও পড়ুন: কাপে চা ঢালার সময়ই দোকানি বলেছিলেন 'সরে দাঁড়ান দাদা', দুই ভাই তখন গল্পে মত্ত, পিছন ঘুরতেই সব শেষ!

অনির্বাণ ঘোষ  কোচবিহারের পাটাকুড়া এলাকার বাসিন্দা।  সুনীতি রোড এলাকাতেই তাঁর ওষুধের দোকান রয়েছে। বুধবার রাতে দোকান বন্ধ করার পর বাজি ফাটাচ্ছিলেন অনির্বাণ সেখানে। সেই সময় একটি তুবড়ি ফেটে গুরুতর আহত হন তিনি। তাঁর নাক-মুখ দিয়ে রক্ত বেরোতে থাকে। স্থানীয়রাই তাঁকে উদ্ধার করে এম জে এন হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তাঁর প্রাথমিক চিকিত্সা করানো হয়। কিছুটা সুস্থবোধ করেন তিনি। রাতে বাড়িতে ফিরে আসেন। কিন্তু রাতে ফের তাঁর রক্তক্ষরণ শুরু হয়। পরিবারের সদস্যরা তাঁকে স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানেই কিছুক্ষণের মধ্যে মৃত্যু হয় তাঁর।

আরও পড়ুন: অনুষ্ঠান সেরে ফেরার পথে গাড়ি দুর্ঘটনায় ফের মৃত্যু গায়কের!

 কিন্তু কীভাবে তুবড়িটি ফাটলো? তা নিয়ে প্রতক্ষদর্শীদের ভিন্ন মত রয়েছে। কেউ বলেছেন, ব্যাগ থেকে তুবড়িটি বার করার পর ফেটে যান কোনওভাবে।  কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী আবার বলেন, অনির্বান শব্দবাজি ফাটাচ্ছিলেন। সেই সময় পাশে রাখা তুবড়িতে আগুনের ফুলকি লেগে ফেটে যায়। তাতেই দুর্ঘটনাটি ঘটে।  হাসিখুশি মিসুখে ছেলের মর্মান্তিক পরিণতিতে এলাকায় শোকের ছায়া।