শিলিগুড়ির বড় ম্যাচে বাজিমত করল ইস্টবেঙ্গল শিলিগুড়ির বড় ম্যাচে বাজিমত করল ইস্টবেঙ্গল

শিলিগুড়ির বড় ম্যাচে বাজিমত করল ইস্টবেঙ্গল। উত্তরবঙ্গের নক আউট ডার্বিতে মোহনবাগানকে ২-১ গোলে হারিয়ে আই লিগের খেতাবি লড়াই জমিয়ে দিল লালহলুদ। শিলিগুড়িতে জ্বলে উঠল মশাল। টানটান উত্তেজনার ম্যাচে নাটকের কমতি ছিল না। ম্যাচের উনচল্লিশ মিনিটে বিতর্কিত পেনাল্টি পায় ইস্টবেঙ্গল। গোল করে লালহলুদকে এগিয়ে দেন ডো ডং। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার আগেই মাঠ থেকে বের করে দেওয়া হয় বাগানের সহকারী কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তীকে। দ্বিতীয়ার্ধে গোল করার সুযোগ এসেছিল ডং, গ্লেনদের সামনে। তিয়াত্তর মিনিটে বাগান রক্ষণকে বোকা বানিয়ে নিজের ও দলের দ্বিতীয় গোলটি করেন ডং। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচের নাটক অবশ্য এরপরও বাকি ছিল। তিরাশি মিনিটে কাতসুমির গোলে লড়াইয়ে ফেরে বাগান। সাত মিনিট ইনজুরি টাইম দেওয়া হয়। এরমধ্যে পেনাল্টি পায় গতবারের চ্যাম্পিয়নরা। পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ জেজে।

 আই লিগের ম্যাচে আটকে গেল মোহনবাগান আই লিগের ম্যাচে আটকে গেল মোহনবাগান

আই লিগের ম্যাচে আটকে গেল মোহনবাগান। কুপারজ স্টেডিয়ামে মোহনবাগান-মুম্বই এফসি ম্যাচ শেষ গোলশূন্য ভাবে। এই ড্রয়ের ফলে পাঁচ ম্যাচে এগারো পয়েন্টে দাঁড়িয়ে মোহনবাগান। আরব সাগর তিরে আটকে গেল মোহনবাগান। আই লিগে মোহনবাগান-মুম্বই এফসি ম্যাচ শেষ গোলশূন্য ভাবে। মুম্বইয়ের কপারেজ স্টেডিয়ামে মুম্বই এফসির গোলরক্ষক পবন কুমার ও স্ট্রাইকারদের ব্যর্থতার জন্য জিততে পারল না গতবারের চ্যাম্পিয়নরা।

আজ দেশের অন্যতম আধুনিক ফুটবলারের জন্মদিন আজ দেশের অন্যতম আধুনিক ফুটবলারের জন্মদিন

আজ ভারতীয় ফুটবলের অন্যতম আধুনিক ফুটবলারের জন্মদিন! আপনার হয়তো অনেকগুলো নাম মাথায় আসছে। ভাবছেন, কে তিনি? নাম আন্দাজ করার চেষ্টা করা শুরু করে দিয়েছেন হয়তো! এই প্রজন্মের অনেকই তাঁর খেলা দেখেননি।

চিনের ঠান্ডায় হাফ ডজন গোল খেল মোহনবাগান চিনের ঠান্ডায় হাফ ডজন গোল খেল মোহনবাগান

চিনের মাঠে পর্যূদস্ত মোহনবাগান। শ্যানডং লুনেংয়ের কাছে হাফডজন গোল খেয়ে কলকাতায় ফিরছে সবুজমেরুন। শক্তিশালী শ্যানডংয়ের কাছে ০-৬ গোলে হেরে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে বিদায় নিল সঞ্জয় সেনের দল। চিনের ঠান্ডায় ম্যাচের শুরুতে কিছুক্ষণ মরিয়া লড়াই করলেও শেষের দিকে ভেঙে পড়ল পাল তোলা নৌকো। প্রথমার্ধে গোল হল দুটো। দ্বিতীয়র্ধে আরও চারটি গোল করে মোহনবাগানকে নিজেদের শক্তিটা বুঝিয়ে দিল মানো মেনেজেসের দল।

চিনে ঠান্ডায় কাঁপছে মোহনবাগান চিনে ঠান্ডায় কাঁপছে মোহনবাগান

চিনে ঠান্ডায় কাঁপছে মোহনবাগান। রবিবার ভারতীয় সময় সন্ধ্যে ছটায় জিনান গিয়ে পৌছয় সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। এখানেই মঙ্গলবার এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ালিফায়ারে চিনের দল শ্যানডঙ লুনেঙের মুখোমুখি হবে সঞ্জয় সেনের দল। পুণের বত্রিশ ডিগ্রি তাপমাত্রা থেকে চিনের মাইনাস দু ডিগ্রি তাপমাত্রায় পৌছে রীতিমত কাঁপছেন সোনি-জেজেরা। আবহাওয়া প্রতিকূল। বিপক্ষ দলও ধারে ভারে অনেকটাই শক্তিশালী। তবে দমছে না সবুজ-মেরুন শিবির। দেশের সম্মানের কথা মাথায় রেখে সেরাটা উজাড় করে দিতে চায় সবাই।

বড় ম্যাচ ১ - ১, গোল রন্টি এবং গ্লেনের! বড় ম্যাচ ১ - ১, গোল রন্টি এবং গ্লেনের!

বড় ম্যাচ ড্র! হোক কলরব হাওয়া তুলতে হয়নি। কলরব ছিলোই। বাঙালির এই কলরব চিরকালের। তাই যুবভারতীতে দর্শকের অভাব ছিল না। টেলিভিশনের সামনেও বসেছিলেন লাখ-লাখ দর্শক। কিন্তু আই লিগের এই ম্যাচে জিতল না কোনওদলই। ম্যাচ শেষ হল ১-১ গোলে।

শনিবারের ডার্বিতে স্ট্র্যাটেজিতে বাজিমাত করতে ঘুঁটি সাজাচ্ছেন দুদলের কোচই শনিবারের ডার্বিতে স্ট্র্যাটেজিতে বাজিমাত করতে ঘুঁটি সাজাচ্ছেন দুদলের কোচই

শনিবারের ডার্বিতে স্ট্র্যাটেজিতে বাজিমাত করতে ঘুঁটি সাজাচ্ছেন দুদলের কোচই। একদিকে মোহনবাগান কোচ সঞ্জয় সেন ঘরোয়া লিগের হারের বদলা নিতে মরিয়া। অন্যদিকে বিশ্বজিত ভট্টাচার্যও চান জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে। সঞ্জয় সেন আর বিশ্বজিত ভট্টাচার্য। শনিবারের ডার্বিতে  দুই বন্ধু দুই চিরপ্রতিন্দন্দ্বী দলের কোচ। ঘরোয়া লিগে মরসুমের প্রথম ডার্বিতে আই লিগ জয়ী সঞ্জয় সেনকে টেক্কা দিয়েছিলেন ইস্টবেঙ্গল কোচ বিশ্বজিত ভট্টাচার্য। তরুণ ব্রিগেড নিয়ে চার গোল হজম করতে হয়েছিল সঞ্জয় সেনকে। সেই দিন থেকে শনিবারের জন্য অপেক্ষা করেছিলেন বাগান কোচ। কেননা এই ম্যাচ আদতে সঞ্জয় সেনের জ্বালা মেটাবার ম্যাচ। ফুটবলার হিসাবে কখনও বড়ম্যাচ খেলেননি বাগান কোচ। উল্টোদিকে ফুটবলার  হিসাবে ডার্বিতে পোড়খাওয়া বিশ্বজিত ভট্টাচার্য। শনিবারের বড়ম্যাচের আগে এটাকে গুরুত্বই দিচ্ছেন না সঞ্জয় সেন। একইসঙ্গে লিগের বড়ম্যাচে জয়কে মাথায় না রেখে শনিবারের ম্যাচ নিয়েই মনোনিবেশ করতে চান বিশ্বজিত ভট্টাচার্য।

ডার্বিতে অনিশ্চিত মোহনবাগানের তারকা স্ট্রাইকার বলবন্ত সিং ডার্বিতে অনিশ্চিত মোহনবাগানের তারকা স্ট্রাইকার বলবন্ত সিং

বছরের প্রথম ডার্বিতে অনিশ্চিত হয়ে পড়লেন মোহনবাগানের তারকা স্ট্রাইকার বলবন্ত সিং। বুধবারই কুঁচকিতে চোট পেয়েছিলেন পঞ্জাবি এই স্ট্রাইকার। বৃহস্পতিবারও চোটের জায়গায় ব্যাথা রয়েছে তাঁর। ফলে অনুশীলনই নামতে পারেননি বলবন্ত। পুরো সময়টাই মাঠের বাইরে ফিজিও-র সঙ্গে কাটান তারকা স্ট্রাইকার। পরপর দুম্যাচে গোল রয়েছে। দুরন্ত ছন্দেও রয়েছেন। তাই বলবন্তের জন্য শেষ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চান মোহনবাগান কোচ সঞ্জয় সেন।

মেগা ডার্বির আগে এ যেন অচেনা মেহতাব হোসেন! মেগা ডার্বির আগে এ যেন অচেনা মেহতাব হোসেন!

মেগা ডার্বির আগে এ যেন অচেনা মেহতাব হোসেন। মোহনবাগানের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে মেহতাবের গলায় নেই কোনও হুঙ্কার। দশ বছরেরও বেশি সময় ধরে দুই প্রধানের হয়ে বড় ম্যাচ খেলা মেহতাব এখনও অনেক অভিজ্ঞ। অনেক শান্ত। ইস্টবেঙ্গলের এই মিডফিল্ডার কিছুটা মাইন্ড গেম খেলে বড় ম্যাচে সবুজমেরুনকে এগিয়ে রাখছেন। চোটের জন্য আগেই ছিটকে গিয়েছেন শেহনাজ সিং। পুরো ফিট নন খাবরাও। বাগানের আক্রমণের ঝড় সামলাতে মাঝমাঠে ইস্টবেঙ্গলের বড় ভরসা মেহতাব।

 শনিবারই নতুন মরসুমে প্রথমবার মোহনবাগান জার্সিতে নামবেন সোনি শনিবারই নতুন মরসুমে প্রথমবার মোহনবাগান জার্সিতে নামবেন সোনি

হাইতিতে বসে ঘরোয়া লিগের ডার্বিতে নিজের দলের হার দেখেছিলেন সোনি নর্ডি। সেই ম্যাচে বিশ্বজিত ভট্টাচার্যের দলের কাছে কার্যত আত্মসমর্পন করতে হয়েছিল বাগানের তরুণ ব্রিগেডকে। সেই হার এখনও ভোলেননি হাইতিয়ান তারকা। শনিবারই নতুন মরসুমে প্রথমবার মোহনবাগান জার্সিতে নামবেন সোনি। সেটাও আবার বড়ম্যাচ। ঘরোয়া লিগের হারের ডার্বিতে হারের বদলা নেওয়ার জন্য মোহনবাগান জনতা তাকিয়ে আছেন সোনির দিকে। ডার্বিতে মাঠে নামার আগে হাইতিয়ান তারকা বলছেন,শনিবারই তো আসল ডার্বি। তবে বড়ম্যাচের থেকে আই লিগ খেতাবকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন সোনি।

  আই লিগে বড় জয় পেল মোহনবাগান আই লিগে বড় জয় পেল মোহনবাগান

আই লিগে বড় জয় পেল মোহনবাগান। বারাসতে  সালগাঁওকরকে চার-দুই গোলে হারিয়ে দিল গতবারের চ্যাম্পিয়নরা। প্রথম ম্যাচে আইজলকে তিন গোল দেওয়ার পর গোয়ার দলটিকেও চার গোল দিল সঞ্জয় সেনের দল। পরপর দুম্যাচে গোল পেলেন গ্লেন,বলবন্ত। সবুজ-মেরুন জার্সিতে প্রথম ম্যাচেই গোল পেলেন ব্রাজিলীয় ডিফেন্ডার লুসিয়ানোও। তবে এত কিছুর পরও ডার্বির আগে ডিফেন্স নিয়ে চিন্তা থেকেই গেল মোহনবাগান কোচের। আটচল্লিশ মিনিটে চার গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর দু গোল হজম করতে হল বাগান ডিফেন্সকে। আগের ম্যাচের মতই সালগাঁওকরের বিরুদ্ধেও প্রথমার্ধটা ছিল মোহনবাগানেরই। প্রথম মিনিটেই পেনাল্টি পেতে পারত সবুজ-মেরুন। তবে আট মিনিটের মধ্যেই গোল করে সবুজ-মেরুনকে এগিয়ে দেন কাতসুমি। বাইশ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান বাড়ান কর্নেল গ্লেন। কয়েক মিনিটের মধ্যেই হেডে সবুজ-মেরুন জার্সিতে নিজের প্রথম গোলটা করে যান লুসিয়ানো। তখন মাঠ জুড়ে শুধুই সবুজ-মেরুন জার্সির দাপট। জ্যাঁকিচাদ-হাওকিপ-ডাফিদের সেভাবে দাঁত ফোটাতে দেননি শৌভিক-প্রণয়রা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই হেডে দুরন্ত গোল করে মোহনবাগানকে চার গোলে এগিয়ে দেন বলবন্ত। কিন্তু তারপরই ম্যাচের রাশ হারিয়ে ফেলে সবুজ-মেরুন। বাগান ডিফেন্সে চাপ বাড়াতে থাকেন ডাফিরা। উনসত্তর আর পঁচাশি মিনিটে দুটো গোলও করে যান সালগাঁওকরের ডাফি আর গুরজিন্দর। দেবজিত বেশ কয়েকটা সেভ না করলে স্কোরলাইন অন্যরকম হতেও পারত। বড়ম্যাচের আগে জেজে-রাজু-প্রবীরকে পরিবর্ত হিসাবে মাঠে নামিয়ে দেখে নেন সঞ্জয় সেন। ডিফেন্সে ফাঁকফোকর থাকলেও আপফ্রন্টের পারফরম্যান্স বড়ম্যাচের আগে নিঃসন্দেহে স্বস্তিতে রাখবে বাগান থিঙ্কট্যাঙ্ককে।

আইজল এফসিকে হারিয়ে আই লিগ অভিযান শুরু করল গতবারের চ্যাম্পিয়ন মোহনবাগান আইজল এফসিকে হারিয়ে আই লিগ অভিযান শুরু করল গতবারের চ্যাম্পিয়ন মোহনবাগান

আইজল এফসিকে তিন-এর গোলে হারিয়ে আই লিগের অভিযান শুরু করল গতবারের চ্যাম্পিয়ন মোহনবাগান। জোড়া গোল করে বাগানের জয়ের নায়ক কর্নেল গ্লেন। একটি গোল করেছেন বলবন্ত। সোনি নর্ডির অভাব  প্রথম ম্যাচে পূরণ করে দিলেন গ্লেন-বলবন্ত জুটি। কারও চোট। কেউ আবার অফিস খেলায় ব্যস্ত। এরকম পরিস্থিতিতে আইলিগের প্রথম ম্যাচের জন্য দল গড়তে কার্যত হিমশিম খেতে হয়েছিল মোহনবাগান কোচ সঞ্জয় সেনকে। তাই কেরিয়ারের অন্যতম কঠিন ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট পেয়ে সন্তোষ প্রকাশ করলেন সঞ্জয় সেন। আইএসএল খেলা ফুটবলারদের পারফরম্যান্সে হতাশ সঞ্জয় সেন। আইলিগের প্রথম ম্যাচ জিতে আইএসএলের হাইপ্রোফাইল কোচদের খোঁচা দিয়ে রাখলেন বাগান কোচ। সঞ্জয়ের দাবি আইএসএল নয়। আইলিগই ফুটবলারদের জাত চেনায়।

 জন্মদিনে বাইচুংকে নিয়ে জানুন ১০টি তথ্য জন্মদিনে বাইচুংকে নিয়ে জানুন ১০টি তথ্য

আজ জন্মদিন ভারতীয় ফুটবলের অন্যতম মুখ বাইচুং ভুটিয়ার। আজ পাহাড়ি বিছের জন্মদিনে তাঁর সম্পর্কে জেনে নিন কয়েকটি অজানা তথ্য।

অনূর্ধ্ব তেইশকাণ্ডে শাস্তি হিসেবে মোহনবাগানের তিন পয়েন্ট কাটা গেল, পয়েন্ট পেল টালিগঞ্জ অনূর্ধ্ব তেইশকাণ্ডে শাস্তি হিসেবে মোহনবাগানের তিন পয়েন্ট কাটা গেল, পয়েন্ট পেল টালিগঞ্জ

টালিগঞ্জ ম্যাচে পুরো সময়ের জন্য অনূর্ধ্ব তেইশ ফুটবলার না খেলানোর জন্য মোহনবাগানের তিন পয়েন্ট কেটে নিল আইএফএ। শুক্রবার লিগ সাব কমিটির সভায় নিজেদের ভুল স্বীকার করে নিয়েছিলেন মোহনবাগানের সেই ম্যাচের ম্যানেজার বিদেশ বোস আর ফুটবল সচিব সত্যজিত চ্যাটার্জি। সব দিক বিবেচনা করে এই বিষয়ে এআইএফএফের নিয়ম দেখে সোমবার আইএফএ-র লিগ সাব কমিটি সবুজ-মেরুনের তিন পয়েন্ট কাটার সিদ্ধান্ত নেয়। এই তিন পয়েন্ট পাচ্ছে টালিগঞ্জ।