কেশপুর বিধানসভা কেন্দ্র

ভোটগ্রহণ- ১১ এপ্রিল

২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী তালিকা

কেশপুরে সিপিএমের কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে কেশপুরে সিপিএমের কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুরে সিপিএমের লোকাল কমিটির কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

ভোটের মুখে উত্তপ্ত কেশপুর, আরামবাগ

ভোটের মুখে রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত আরামবাগ এবং কেশপুর। কোথাও আক্রান্ত সিপিআইএম নেতা-কর্মীরা। কোথাও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছেন সিপিআইএম এবং তৃণমূলের কর্মী-সদস্যরা।

নির্বাচনের আগে ফের উত্তপ্ত কেশপুর

লোকসভা নির্বাচনের আগে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুর। এলাকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আজ সেখানে যান বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। তাঁর সঙ্গে রয়েছেন মঞ্জুকুমার মজুমদার, গুরুদাস দাশগুপ্ত ও ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের সিপিআই প্রার্থী সন্তোষ রাণা। এলাকার বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখবেন তাঁরা। বামেদের অভিযোগ, কেশপুরের এইসব গ্রামে সন্ত্রাস চালাচ্ছে তৃণমূল। কেশপুরে সিপিআইএমের জোনাল অফিস জামশেদ ভবনে আজ ঘরছাড়া বাম কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে দেখা করেন বিমান বসু।

ফের কেশপুরে সশস্ত্র দুষ্কৃতিদের হামলা, দুষ্কৃতিরা তৃণমূল আশ্রিত অভিযোগ গ্রামবাসীদের

ফের কেশপুরে সন্ত্রাস চালাল কিছু সশস্ত্র দুষ্কৃতিরা। কেশপুরের থারউ গ্রামে গত কাল রাতে ঘটনাটি ঘটে। এখন আতঙ্কে রয়েছেন গ্রামবাসিরা। তাঁদের অভিযোগ তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরাই এই হামলা চালিয়েছে। আরও অভিযোগ ওঠে পুলিসের নিস্ক্রিয় ভূমিকা নিয়ে।

হুমকির জেরে ফের বন্ধ কেশপুরের সিপিআইএম কার্যালয়

হুমকির মুখে ফের বন্ধ হয়ে গেল কেশপুরের আনন্দপুরে সিপিআইএমের দলীয় কার্যালয়। গত ১০ জুলাই দীর্ঘ ১৪ মাস পর ওই কার্যালয়টি খোলা হয়েছিল। গত বছরের মে মাসের বিধানসভা ভোটের পর থেকে ঘরছাড়া কেশপুরের বিভিন্ন গ্রামের বেশ কিছু সিপিআইএম সমর্থক সেখানে থাকতে শুরু করেন।

কেশপুরে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব

স্কুল পরিচালন কমিটির নির্বাচনকে ঘিরে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তেজনা ছড়াল পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুরে। কেশপুরের কোঙারের আয়মা স্কুল কমিটির নির্বাচন ঘিরেই দুই গোষ্ঠীর বিবাদ। নির্বাচনে মনোনয়ন দিতে না-দেওয়ায় এক গোষ্ঠীর মনোনীত প্রার্থী নিরঞ্জন ঘোষকে অন্য গোষ্ঠীর লোকেরা অপহরণ করেছে বলে অভিযোগ।

নেতাকে ছাড়াতে থানায় তৃণমূলের বিক্ষোভ

গোষ্ঠী সংঘর্ষের ঘটনায় গ্রেফতার দলীয় নেতাকে মুক্তির দাবিতে শুক্রবার কেশপুর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাল স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব। গত ৪ এপ্রিল কেশপুরে তৃণমূল কংগ্রেসের দুটি গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ওই ঘটনায় শুক্রবার সকালে মহম্মদ আজিবুল হক নামে এক তৃণমূল নেতাকে গ্রেফতার করে পুলিস।

কেশপুরে তৃণমূলের গোষ্ঠীসংঘর্ষ

এক তৃণমূল কর্মীর গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে মালদার কালিয়াচক এলাকায়। গুলিবিদ্ধ তৃণমূল কর্মীর নাম হায়দার শেখ। বুধবার সকালে খুব কাছ থেকে হায়দরকে গুলি করা হয়। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। এ ঘটনায় সিপিআইএমের জড়িত থাকার অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। অন্যদিকে, অভিযোগ অস্বীকার করেছে সিপিআইএম। ঘটনার জন্য দলের পক্ষ থেকে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দলকেই দায়ী করা হয়েছে।   

অস্ত্রসহ ধরা পড়া গাড়ি চালকের বিস্ফোরক মন্তব্য: অস্ত্র তুলে দিয়েছেন থানার অফিসার ইনচার্জ

কেশপুরের জামশেদ আলি ভবনে হামলার ঘটনা ঘটেছে মঙ্গলবার। তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগ সিপিআইএমের এই কার্যালয়ে দুষ্কৃতীরা আশ্রয় নিয়েছিল. সিপিআইএমের ওই কার্যালয় থেকে মোট পঁয়তাল্লিশ জনকে পুলিস উদ্ধার করলেও তার মধ্যে ছজনকে খুনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করেছে।মঙ্গলবার সকালে কেশপুরের এই এলাকায় একটি গাড়ি ধরা পড়ে স্থানীয় মানুষের হাতে।

কেশপুরে আক্রান্ত সি পি আই এম অফিস

পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশপুর ফের খবরের শিরোনামে। আজ সকালে কেশপুরে সিপিআইএমের দলীয় দফতর জামশেদ স্মৃতি ভবনের বাইরে জড়ো হয় শতাধিক দুষ্কৃতী। এরপর ভবনের পাঁচিল ও গেট ভেঙে দুষ্কৃতীরা ভেতরে ঢুকে রীতিমত তাণ্ডব চালায়। চলে অবাধে ভাঙচুর।

কেশপুরে হামলা পরিকল্পিত, অভিযোগ সূর্যকান্তের

কেশপুরে জামশেদ স্মৃতি ভবনে হামলার ঘটনা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপান উতোর । বিরোধী দলনেতা সূর্যকান্ত মিশ্রের বক্তব্য, তাঁদের দলের কর্মীদের ওপর পরিকল্পিত হামলা চালিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। অভিযোগ অস্বীকার করেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব।