অধ্যক্ষকে মারধরের অভিযোগ ওঠায় `প্রমোশন` মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুর! রোগী কল্যাণ সমিতি থেকে সরানো হল মন্ত্রী-বিধায়কদের

আচমকাই রাজ্যের সাতটি মেডিক্যাল কলেজের রোগী কল্যাণ সমিতি থেকে সরানো হল মন্ত্রী, বিধায়কদের। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, পারফরমেন্স ভাল না হওয়ায় মুখ্যমন্ত্রীর ইচ্ছাতেই তাঁদের ওই সমিতিগুলি থেকে সরিয়ে দেওয়ার এই সিদ্ধান্ত।

Updated: Oct 8, 2013, 09:39 AM IST

আচমকাই রাজ্যের সাতটি মেডিক্যাল কলেজের রোগী কল্যাণ সমিতি থেকে সরানো হল মন্ত্রী, বিধায়কদের। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, পারফরমেন্স ভাল না হওয়ায় মুখ্যমন্ত্রীর ইচ্ছাতেই তাঁদের ওই সমিতিগুলি থেকে সরিয়ে দেওয়ার এই সিদ্ধান্ত।
তবে মজার কথা, মালদা মেডিক্যাল কলেজের রোগী কল্যাণ সমিতিতে এসেছেন কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী। যাঁর বিরুদ্ধে ওই মেডিক্যালেরই অধ্যক্ষকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে কিছুদিন আগে।
গত ২৯ সেপ্টেম্বর মালদা মেডিক্যাল কলেজে বিতর্কে জড়ান মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু। অভিযোগ, তাঁর নির্দেশেই কলেজের ছাত্রী হস্টেলের ক্যান্টিন দখলের অভিযোগ ওঠে। শনিবার একদল বহিরাগত ক্যান্টিন বন্ধ করে দেয়। এবিষয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। অভিযোগ জানানো হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকেও।
দীর্ঘদিন ধরেই মালদা মেডিক্যাল কলেজের ছাত্রী হস্টেলের ক্যান্টিন চালাচ্ছেন গৌতম দস্তিদার। শনিবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ হঠাতই ক্যান্টিনে ঢোকে একদল বহিরাগত। জোর করে ক্যান্টিন বন্ধ করে দেয় তারা। গৌতমবাবুকে হুমকিও দেওয়া হয়। তাঁর অভিযোগ, বহিরাগতরা দাবি করেন, জেলার রুগি কল্যাণ দফতরের চেয়ারম্যান ও পর্যটনমন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরীর নির্দেশেই তাঁকে সরতে হবে।