পাহাড় সফরে মুখ্যমন্ত্রীকে বয়কটের পথে মোর্চা

Last Updated: Sunday, September 1, 2013 - 21:39

পাহাড় সফরে মুখ্যমন্ত্রীকে কার্যত বয়কট করছে মোর্চা। বিমল গুরুংদের সাফ কথা, এখন তাঁরা কেন্দ্রের দিকেই তাকিয়ে। আজই ফের দিল্লি রওনা দিয়েছেন মোর্চা নেতারা। পাহাড়ের স্কুলগুলিকে বনধের আওতা থেকে বাদ দেওয়া নিয়ে পরে সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছে গোর্খাল্যান্ড জয়েন্ট অ্যাকশন কমিটি।
পাহাড় সফরে মুখ্যমন্ত্রী। সঙ্গী মোর্চার নেতারা। সর্বত্র মনকাড়া অভ্যর্থনা। এটাই ছিল চেনা ছবি। কিন্তু এবার উল্টো। মুখ্যমন্ত্রীর সফরের সময় পাহাড়ের মানুষ ঘরে বসে থাকবেন। প্রতিবাদের এই স্ট্র্যাটেজিটাই ঠিক করেছেন বিমল গুরুংরা।
বামেরা বলছে, সুবাস ঘিসিংয়ের সঙ্গে চুক্তির সময় স্পষ্ট লেখা হয়েছিল, তাঁরা পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবি থেকে সরে আসছেন। কিন্তু মোর্চার সঙ্গে ত্রিপাক্ষিক চুক্তিতে গোর্খাল্যান্ড শব্দটা রেখেই পাহাড়ে নতুন করে অশান্তি তৈরির রাস্তাটা রেখে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাহাড়ে নতুন করে অশান্তি তৈরি হয়েছে। কঠোর হাতে তা মোকাবিলার রাস্তায় নেমেছে রাজ্য সরকার। তবু শান্তি ফেরেনি পাহাড়ে। মোর্চা নেতাদের কাছে স্পষ্ট, পিছিয়ে আসার রাস্তা আর নেই। আবার আলোচনার রাস্তা খোলা না গেলে যে বিপদ, তা বুঝছেন বিমল গুরুংরা। তাই গত মাসে রোশন গিরিরা দিল্লি থেকে খালি হাতে ফিরলেও রবিবার ফের দিল্লি রওনা দিয়েছেন মোর্চা নেতারা। এবার সঙ্গে আছেন সিপিআরএম নেতারাও। 
 টানা বনধে পাহাড়ের সাধারম মানুষের মধ্যে ক্ষোভ ছড়ানোর ইঙ্গিত মিলছে। তাই রবিবার, দার্জিলিঙের নর্থ পয়েন্ট স্কুলের মাঠে পাহাড়ের বিভিন্ন স্কুল কর্তৃপক্ষ, অভিভাবকদের নিয়ে সভা করেন স্বয়ং বিমল গুরুং। বনধের আওতা থেকে স্কুল ছাড় পাবে কিনা তা কয়েকদিন পরে জানানোর কথা বলে মোর্চা সভাপতি বুঝিয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীর পাহাড় সফরের সময় আন্দোলনে কোনও শিথিলতা দেখাতে নারাজ তাঁরা। রাজ্য সরকারের কৌশল ভেস্তে দিতে  লেপচাদের একাংশকে মাঠে নামিয়েছে মোর্চা। সরকারের বিরুদ্ধে বিভাজনের রাজনীতির অভিযোগ তুলে দার্জিলিঙের চকবাজারে রিলে অনশন শুরু করেছে অল ইন্ডিয়া লেপচা অ্যাসোসিয়েশন।
 
 
 



First Published: Sunday, September 1, 2013 - 21:39


comments powered by Disqus