'দ্যা অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার' ঘিরে বড়সড় বিভাজন প্রদেশ কংগ্রেস শিবিরেই

"আমরা কারোও বাক স্বাধীনতার বিপক্ষে নন।" সাফ বক্তব্য রোহন মিত্রের।

Updated: Jan 11, 2019, 04:03 PM IST
'দ্যা অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার' ঘিরে বড়সড় বিভাজন প্রদেশ কংগ্রেস শিবিরেই

নিজস্ব প্রতিবেদন : 'দ্যা অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার' নিয়ে যুব কংগ্রেসের বিক্ষোভ। আর সেই বিক্ষোভের জেরে শো-এর মাঝপথে কলকাতা হিন্দ আইনক্সে বন্ধ হয়ে গেল ছবির প্রদর্শন। কিন্তু সেই বিক্ষোভের ঘটনাতেই ফের সুস্পষ্ট হয়ে উঠল কংগ্রেসের অন্দরে বিভাজন। আরও একবার সামনে এল অধীরপন্থী ও সোমেনপন্থীদের বিভেদ।

ছবিটি প্রদর্শনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে এদিন সকাল থেকেই পথে নামেন যুব কংগ্রেস সমর্থকরা। সকাল থেকেই হিন্দ আইনক্সের সামনে শুরু হয় বিক্ষোভ। কুশপুতুল পোড়ানো হয়। পরিস্থিতি বিচার করে মোতায়েন ছিল বিশাল পুলিস বাহিনী। ছবিটি প্রদর্শন শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই হলের বাইরে বাড়তে থাকে উত্তেজনা। এই পরিস্থিতিতে শো শুরুর ১০ মিনিটের মধ্যেই বন্ধ করে দেওয়া হয় ছবিটি প্রদর্শন।

দর্শকরা জানিয়েছেন, ছবি শুরুর ১০ মিনিটের মধ্যেই শো বন্ধ করে দেওয়া হয়। ছবিটির প্রদর্শন চলাকালীন হঠাত্ই হলের ভিতর ঢুকে পড়ে সাদা পোশাকের পুলিস। তারপরই তাঁদের হল থেকে বেরিয়ে যেতে বলা হয়। যদিও, হিন্দ কর্তৃপক্ষ তখনই স্পষ্ট জানিয়ে দেয় যে, ছবি প্রদর্শন বন্ধ নিয়ে কোনও নির্দেশ আসেনি। পরিস্থিতির বিচারে দর্শকদের নিরাপত্তার স্বার্থে-ই আপাতত ছবিটি প্রদর্শন বন্ধ করা হয়েছে।

হলের বাইরে পুড়ছে কুশপুতুল

আর তারপরই শো বন্ধ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেন যুব কংগ্রেস সহ সভাপতি রোহন মিত্র। তিনি পরিষ্কার বলেন যে, কাউকে কোনও রকম শো বন্ধ করতে বলা হয়নি। রাহুল গান্ধি তাঁদের এই নির্দেশ দেননি। তাঁরা কারোও বাক স্বাধীনতার বিপক্ষে নন। প্রসঙ্গত, এদিন সকাল থেকে বিক্ষোভ হয় যুব কংগ্রেস নেতা সুমন পালের নেতৃত্বে। হাত শিবিরের অন্দরে যিনি অধীরপন্থী বলেই পরিচিত। অন্যদিকে, রোহন মিত্র বর্তমানে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের ছেলে। ফলে সহমতের ভিত্তিতে যে এই বিক্ষোভ হয়নি, তা এদিনের ঘটনায় স্পষ্ট।

এদিকে, বিক্ষোভের জেরে শো বন্ধ হওয়ার পরই মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে রাজ্যে 'দ্যা অ্যকসিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার' নিষিদ্ধ করা হবে কি না, সেই প্রশ্ন। সেই সম্ভাবনায় জল ঢেলে দিয়েছেন খোদ রাজ্যের তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন। তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, "রাজ্যের কোথাও কোনও সিনেমা বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়নি।" উল্লেখ্য, প্রথম শো বন্ধ হয়ে গেলেও পরবর্তী শো নির্ধারিত সময়েই চলে হিন্দ আইনক্সে।

আরও পড়ুন, বিপাকে পর্দার মনমোহন সিং, অনুপম খেরের বিরুদ্ধে দায়ের এফআইআর

প্রসঙ্গত, ছবির ট্রেলর সামনে আসার পর থেকেই বিতর্কের সূত্রপাত হয়। মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, পঞ্জাবে ছবি মুক্তির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবি ওঠে। দাবি তোলেন কংগ্রেস সমর্থকরা। পাশাপাশি, ইতিমধ্যেই অনুপম খেরের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে একাধিক এফআইআর। ছবির মুখ্য চরিত্র প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং-এর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অনুপম খের।